default-image

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় কারাবন্দী লেখক মুশতাক আহমেদের (৫৩) মৃত্যুর ঘটনায় করা তদন্ত প্রতিবেদন আজ বুধবার বিকেলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খানের কাছে জমা দেওয়া হয়েছে। ওই প্রতিবেদন সম্পর্কে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আজ রাতে প্রথম আলোকে বলেছেন, মুশতাকের মৃত্যু ন্যাচারাল (স্বাভাবিক মৃত্যু)। এর সঙ্গে অন্য কোনো সংশ্লিষ্টতা পাওয়া যায়নি।’

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেছেন, ‘আজ আমি মন্ত্রণালয় থেকে বের হয়ে আসার সময় প্রতিবেদন জমা দেওয়া হয়েছে। পরে তা পড়ে বিস্তারিত বলতে পারব।’

গত ২৫ ফেব্রুয়ারি রাতে লেখক মুশতাক আহমেদ মারা যান। তিনি গাজীপুরের কাশিমপুর হাই সিকিউরিটি কারাগারে ছিলেন।

কারা কর্তৃপক্ষ জানায়, মুশতাক আহমেদ সেদিন সন্ধ্যার দিকে কারাগারের ভেতর হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েন। তাঁকে প্রথমে কারা হাসপাতালে নেওয়া হয়। পরে গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে মৃত ঘোষণা করেন।

২৬ ফেব্রুয়ারি ময়নাতদন্ত ও সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি শেষে পুলিশ তাঁর মরদেহ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করে।

বিজ্ঞাপন

গত ২৭ ফেব্রুয়ারি মুশতাক আহমেদের মৃত্যুর ঘটনায় দুই সদস্যবিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। শুক্রবার রাতে গাজীপুরের জেলা প্রশাসক (ডিসি) এস এম তরিকুল ইসলাম ওই কমিটি গঠন করেন। দুই কার্যদিবসের মধ্যে এই কমিটিকে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়। এ কমিটির সদস্যরা হলেন গাজীপুর জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ওয়াসিউজ্জামান চৌধুরী ও উম্মে হাবিবা ফারজানা।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন