default-image

. আমার এক নন মেডিকেল বন্ধু সব সময় মজা করে বলে, ‘ডাক্তাররা প্র্যাকটিস করেই এত টাকা আয় করে, কাজটা করলে না জানি কত টাকা কামাত!’
. রোগীরা এখন আগে থেকেই তাদের রোগ সম্পর্কে জেনে আসে। তাদের সঙ্গে পাল্লা দিতে হিমশিম খেতে হচ্ছে!
: কী আর করা, তাদের চেয়ে বেশি স্পিডওয়ালা ইন্টারনেট লাইন নেন।

default-image

. ডাক্তার শামীম তাঁর রোগীকে বললেন, ‘আপনার ফুসফুসে পানি জমে গেছে’ রোগীর জবাব, ‘ভালো করে দেখুন, স্যার! সম্ভবত পেটে পানি জমেছে, আমি তো আর নাক দিয়ে পানি ঢুকাইনি যে পেটে না গিয়ে ফুসফুসে যাবে!
. গাইনি চিকিৎসক ফারজানার উক্তি, ‘যুগ যতই কর্ডলেস হোক না কেন, এখনো বাচ্চারা কর্ড ছাড়া ভূমিষ্ঠ হয় না’
. নীলক্ষেতে গেলাম একটা ‘মেডিকেল এথিকস’ বা ‘চিকিৎসার নৈতিকতা’ বইটি কিনতে। দোকানদার বলল, ‘বেশি দাম দিয়ে আসলটা নেবেন, নাকি সস্তায় নকলটা?’ বললাম, ‘নকলটাই দেন’
. আমাদের এক মেডিকেল টিচার রোগীদের সঙ্গে মজা করতে খুব পছন্দ করেন। একদিন এক রোগীকে বলছিলেন, ‘তা এখন আপনার সিদ্ধান্ত কী? দিনে এক ঘণ্টা করে হাঁটবেন, নাকি দিনের ২৪ ঘণ্টাই মরার মতো থাকবেন?’

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন