default-image

সড়কের পাশে যন্ত্রণায় ছটফট করছিলেন এক ব্যক্তি। পথচারীরা গিয়ে দেখেন, ওই ব্যক্তির গলা কাটা। রক্তক্ষরণ হচ্ছে। দ্রুত ওই ব্যক্তিকে হাসপাতালে নেন পথচারীরা। সেখানে মারা যান ওই ব্যক্তি। মঙ্গলবার রাতে এ ঘটনা ঘটেছে মুন্সিগঞ্জের লৌহজং উপজেলায়।

নিহত ব্যক্তির নাম মো. আশরাফ হোসেন (৩০)। তিনি শ্রীনগর উপজেলার বাঘরা এলাকার সাইফুল ইসলামের ছেলে। আশরাফ পেশায় অটোচালক ছিলেন।

জানতে চাইলে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (শ্রীনগর সার্কেল) মো. আসাদুজ্জামান রাত সাড়ে ১০টার দিকে প্রথম আলোকে বলেন, ওই যুবকের অটো ছিনতাই বা পারিবারিকভাবে কারও সঙ্গে কোনো শত্রুতার কারণে এ ঘটনা ঘটল কি না, এসব বিষয় সামনে রেখে পুলিশ কাজ করছে। জড়িত ব্যক্তিদের গ্রেপ্তারের জন্য অভিযান চালানো হচ্ছে।

বিজ্ঞাপন


থানা-পুলিশ ও স্থানীয় বাসিন্দা সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার রাত আটটার দিকে লৌহজংয়ের হলদিয়া-গোয়ালিমান্দ্রা সড়ক দিয়ে কয়েকজন লোক ফিরছিলেন। কারপাশা এলাকায় সেতু-সংলগ্ন পাকা রাস্তার পাশে আশরাফ যন্ত্রণায় ছটফট করছিলেন। পথচারীরা কাছে গিয়ে দেখেন, তাঁর গলা কাটা। প্রচুর রক্তক্ষরণ হচ্ছে। পথচারীরা তাৎক্ষণিকভাবে থানায় খবর দেন। একই সঙ্গে তাঁরা আশরাফকে লৌহজং উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। সেখানকার চিকিৎসকেরা আশরাফকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে রাজধানীর সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠান। সেখানে রাত নয়টার দিকে তিনি মারা যান।

বিজ্ঞাপন


জানতে চাইলে লৌহজং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আলমগীর হোসাইন বলেন, ধারালো অস্ত্র দিয়ে আশরাফের গলায় পোঁচ দেওয়া হয়েছে। তাঁর পরিবারের লোকজনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হচ্ছে।

মন্তব্য পড়ুন 0