ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুর উপজেলার কড়িকান্দিতে যাত্রা ও জুয়ার আয়োজনের প্রতিবাদে গতকাল শনিবার বিক্ষোভ মিছিল করেছে এলাকাবাসী। এর আগে গত মঙ্গলবার যাত্রা ও জুয়ার আয়োজন বন্ধ করতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মামুনুর রশিদের কাছে লিখিত অভিযোগ করে এলাকাবাসী।
প্রত্যক্ষদর্শী ও এলাকার কয়েকজন বাসিন্দা সূত্রে জানা গেছে, যাত্রার প্যান্ডেল তৈরির প্রতিবাদে গতকাল বেলা ১১টার দিকে উপজেলার কানাইনগর বাজার এলাকা থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করে এলাকাবাসী। মিছিলটি কড়িকান্দি ফেরিঘাট পর্যন্ত ঘুরে কানাইনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে গিয়ে শেষ হয়। এতে আইয়ুবপুর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান মো. নজরুল ইসলাম, ওই ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক কাজী আবুল কালাম আজাদ, সাবেক ইউপি সদস্য আবদুর রহিম, বিদ্যালয় ও মাদ্রাসার শিক্ষার্থী, ছাত্রসহ সর্বস্তরের তিন শতাধিক মানুষ অংশ নেয়।
ইউপি চেয়ারম্যান মো. নজরুল ইসলাম প্রথম আলোকে জানান, এখন এসএসসি পরীক্ষা চলছে। এরপর এইচএসসি পরীক্ষা শুরু হবে। এ সময় কড়িকান্দিতে যাত্রা চালু হলে এলাকায় নেতিবাচক প্রভাব পড়বে। এ ছাড়া যাত্রার নামে জুয়া ও অশ্লীল নাচের আয়োজনও চলবে সেখানে। এ কারণে প্রতিকার চেয়ে ইউএনওর কাছে আবেদনও করা হয়েছে। এর পরও সেখানে প্যান্ডেল তৈরির কাজ চলছে।
বাঞ্ছারামপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) অংশু কুমার দেব বলেন, ‘কড়িকান্দি গ্রামের পাশে যাত্রার প্যান্ডেল তৈরির কথা শুনেছি। আমরা যাত্রা বন্ধ করতে এসপি স্যারের কাছে থানা থেকে একটি প্রতিবেদন দিয়েছি।’
ইউএনও মো. মামুনুর রশিদ জানান, যাত্রা আয়োজনের কোনো অনুমতি দেওয়া হয়নি। যাত্রার অনুমতি না দিতে এলাকাবাসী একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।
এ ব্যাপারে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার পুলিশ সুপার মো. মনিরুজ্জামান জানান, উপজেলার কড়িকান্দি বা অন্য কোথাও যাত্রার আয়োজন করতে কেউ আবেদন করেনি। আর আবেদন করলেও যাত্রার আয়োজনের বিষয়ে কাউকে অনুমতি দেওয়া হবে না। কেউ যাত্রার আয়োজন করতে চাইলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন