কথিত জিহাদে অংশ নিতে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত তিন ব্রিটিশ তরুণী সিরিয়া গেছেন বলে ধারণা করছে লন্ডন মেট্রোপলিটন পুলিশ। গত মঙ্গলবার সকালে বাসা থেকে বের হওয়ার পর ওই দিনই তুরস্কের একটি ফ্লাইটে তিন তরুণী যুক্তরাজ্য ছেড়ে যান বলে জানিয়েছে পুলিশ।
নিখোঁজ এই তিনজনের মধ্যে শামিমা বেগমের বয়স ১৫ বছর ও খাদিজা সুলতানার বয়স ১৬। পরিবারের ইচ্ছায় ১৫ বছর বয়সী অপর তরুণীর নাম প্রকাশ করেনি পুলিশ। এরা তিনজনই বাংলাদেশি অধ্যুষিত পূর্ব লন্ডনের বেথনাল গ্রিন একাডেমির শিক্ষার্থী। তারা তিনজনই বন্ধু। প্রত্যেকে সাধারণ পরিবারের সন্তান এবং তিনজনেরই আদি বাড়ি বাংলাদেশের সিলেট বিভাগে বলে জানা গেছে।
ইতিপূর্বে যুক্তরাজ্যের বাঙালি তরুণদের সিরিয়া গমন এবং সেখানে জঙ্গিগোষ্ঠী আইএসের পক্ষে লড়াইয়ে বাঙালি তরুণদের প্রাণ হারানোর ঘটনা জানা গেলেও; বাঙালি তরুণীদের সিরিয়া গমনের ঘটনা এটাই প্রথম। পুলিশের ধারণা জঙ্গিগোষ্ঠী আইএসের পক্ষে লড়াই করতে এসব তরুণী তুরস্ক হয়ে সিরিয়া গমন করতে পারে।
তুরস্ক সীমান্ত পাড়ি দিয়ে সিরিয়া গমনের পূর্বে এসব তরুণীকে ফিরিয়ে আনতে ব্যাপক তৎপরতা শুরু করেছে স্কটল্যান্ড ইয়ার্ড। জানা গেছে, মঙ্গলবার সকাল আটটার আগে তিন তরুণী বাসা থেকে বের হয়। ওইদিন তারা ফিরে না আসায় পরদিন পরিবার বিষয়টি পুলিশকে জানায়। একই সঙ্গে তারা বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত এমপি রুশনারা আলীর সহায়তা কামনা করে। শুক্রবার লন্ডনের বাংলাদেশি নিয়ন্ত্রণাধীন কয়েকটি মসজিদে এসব তরুণীর সন্ধানদানে মুসলিমদের প্রতি আহ্বান জানানো হয়।
পুলিশ গত বুধবার জানায়, মঙ্গলবার দুপুর ১২টা ৪০ মিনিটে তিন তরুণী লন্ডনের গেটউইক এয়ারপোর্ট থেকে তুরস্কের উদ্দেশ্যে যুক্তরাজ্য ছাড়ে। স্কটল্যান্ড ইয়ার্ডের সন্ত্রাসবিরোধী ইউনিটের কমান্ডার রিচার্ড ওয়ালটন বলেন, এসব তরুণী পরিবারকে ধোঁকা দিয়ে সিরিয়া গমনের উদ্দেশে তুরস্ক গিয়ে থাকতে পারে। সিরিয়াকে একটি ভয়ংকর মৃত্যুকূপ উল্লেখ করে তিনি বলেন, এই মুহূর্তে তারা তরুণীদের নিরাপত্তা নিয়ে সবচেয়ে বেশি উদ্বিগ্ন। তিনি আরও বলেন, তুরস্ক সীমান্ত পাড়ি দেওয়ার পূর্বে ফিরিয়ে আনার জন্য তারা সেই দেশের গণমাধ্যম এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ বিভিন্নভাবে তিন তরুণীর সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করছেন।
এদিকে তিন তরুণী নিখোঁজের ঘটনায় চরম উদ্বেগ প্রকাশ করে রুশনারা আলী বলেছেন, সাধারণ পরিবারের এসব তরুণীকে উগ্রবাদীরা ব্রেইন ওয়াশ করেছে বলে জানিয়েছে তাদের পরিবার। তিনি জানান, তিন তরুণীকে উদ্ধারে পুলিশ সম্ভাব্য সবকিছু করছে।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন