বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, শংকরপাশা ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনীত হয়েছেন তিনবার নির্বাচিত চেয়ারম্যান সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি তোফাজ্জেল হোসেন মল্লিক। এ ইউনিয়নে বিদ্রোহী প্রার্থী হন জেলা আওয়ামী লীগের ধর্মবিষয়ক সম্পাদক নাসির উদ্দিন মাতুব্বর। গত রোববার রাতে পিরোজপুর পৌর যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল মাহাবুব শংকরপাশা গ্রামের মল্লিকবাড়ি বাসস্ট্যান্ড এলাকায় আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থীর পক্ষে প্রচারণা চালানোর সময় স্বতন্ত্র প্রার্থী নাসির উদ্দিন মাতুব্বরের সমর্থকদের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়।

এ সময় ফয়সাল মাহাবুবকে লক্ষ্য করে গুলি চালান নাসির উদ্দিন মাতুব্বর। গুলিটি তাঁর কাঁধে লাগে। এ ঘটনায় মামলার পর পুলিশ নাসির উদ্দিন মাতুব্বরসহ ১০ জনকে গ্রেপ্তার করে। এ নিয়ে গতকাল রাতে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এ কে এম এ আউয়ালের সভাপতিত্বে দলের সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় বিদ্রোহী প্রার্থী হওয়ায় এবং ফয়সাল মাহাবুবকে গুলি করার অভিযোগে নাসির উদ্দিন মাতুব্বরকে বহিষ্কার করা হয়।

default-image

জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম এ হাকিম হাওলাদার বলেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক শৃঙ্খলাবিধি ও গঠনতন্ত্রের ৪৭–এর ‘ঠ’ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী, জেলা কমিটির ধর্মবিষয়ক সম্পাদক নাসির উদ্দিন মাতুব্বরকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, কাল বৃহস্পতিবার শংকরাপাশা ইউপিতে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। আওয়ামী লীগের প্রার্থী তোফাজ্জেল হোসেন মল্লিক জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এ কে এম এ আউয়ালের অনুসারী। বিদ্রোহী প্রার্থী নাসির উদ্দিন মাতুব্বর একসময় জামায়াত নেতা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর ঘনিষ্ঠ সহযোগী ছিলেন। ২০০৪ সালের দিকে তিনি আওয়ামী লীগে যোগ দেন। এরপর দীর্ঘদিন এ কে এম এ আউয়ালের অনুসারী ছিলেন। ২০১৮ সালে অনুষ্ঠিত জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর নাসির উদ্দিন মাতুব্বর মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিমের অনুসারী হন।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন