default-image

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যুবলীগের নেতা-কর্মীদের জাতির পিতার আদর্শ বুকে ধারণ করে দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়ে রাজনীতি করার আহ্বান জানিয়েছেন। আদর্শবিহীন রাজনীতি টিকে থাকতে পারে না উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘যুবলীগের নেতা-কর্মীদের বলব জাতির পিতার আদর্শ যদি কেউ বুকে ধারণ করে দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়ে মানুষের কল্যাণের কথা চিন্তা করে রাজনীতি করে, তাহলে সে-ই রাজনীতিতে টিকে থাকে।’
যে রাজনীতি করতে গিয়ে লোভের বশবর্তী হয়, অর্থ-সম্পদ যাদের কাছে বড় হয়ে যায়, তারা কিন্তু বেশি দিন টিকতে পারে না, এটা বাস্তবতা বলে উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী এ সম্পর্কে আরও বলেন, ‘সংগঠনকে শক্তিশালী করে আদর্শভিত্তিক সংগঠন হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। সব সময় মনে রাখতে হবে, আমাদের রাজনীতি যাতে দেশের মানুষের কল্যাণের জন্য হয়, কারণ সেটিই সঠিক রাজনীতি।’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ বুধবার সকালে যুবলীগের ৪৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির ভাষণে এ কথা বলেন। তিনি গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বাংলাদেশ কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে (কেআইবি) মূল অনুষ্ঠানে ভার্চ্যুয়ালি অংশগ্রহণ করেন।

বিজ্ঞাপন

প্রধানমন্ত্রী বলেন, রাজনীতি করতে এসে যারা ভাগ্য তৈরি করতে লেগে পড়ে, তারা কিছু টাকাপয়সা করতে পারলেও পরে তাদের আর কোনো অস্তিত্ব থাকে না—এটাই প্রমাণিত সত্য। তিনি বলেন, ’৭৫-পরবর্তী ক্ষমতা দখলকারীরা ক্ষমতাকে ভোগের বস্তু হিসেবে নেওয়াতে মুষ্টিমেয় কিছু লোকের ভাগ্যের বদল করতে পারলেও দেশ ও জনগণের কোনো কল্যাণ বয়ে আনতে পারেনি। তাই আজকে জনগণের কাছে তাদের কোনো স্থান নেই, এই স্থান আসলে থাকে না।

এই উপমহাদেশের প্রাচীন সংগঠন আওয়ামী লীগ জাতির পিতার আদর্শ নিয়ে চলাতেই আজ পর্যন্ত টিকে রয়েছে, উল্লেখ করে যুবলীগের নেতা-কর্মীদের তিনি বলেন, ‘যুবলীগকে আমি বলব, জাতির পিতার সেই আদর্শকে বুকে নিয়েই সংগঠন করতে হবে। তাহলেই এ দেশের তরুণ সমাজের জন্য কাজ করা যাবে। কারণ, তারুণ্যই হচ্ছে কাজের সময়।’ তিনি বলেন, ‘তারুণ্যের শক্তি বাংলাদেশের সমৃদ্ধি’, এটি যে কারণে আমাদের নির্বাচনী ইশতেহারের বক্তব্য।

অনুষ্ঠানে যুবলীগর সাবেক নেতৃবৃন্দের মধ্যে শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন, আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক, দলের সাংগঠনিক সম্পাদক সাংসদ মীর্জা আজম এবং হারুনুর রশীদ বক্তৃব্য দেন। যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন এবং যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মইনুল হোসেন নিখিল অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন।

জাতির পিতার নির্দেশে যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশ পুনর্গঠনে যুবসমাজকে কাজে লাগানোর জন্য ১৯৭২ সালের ১১ নভেম্বর যুবলীগ প্রতিষ্ঠিত হয়। ’৭৫-এর ১৫ আগস্ট জাতির পিতা এবং তাঁর পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে হত্যাকাণ্ডের শিকার শেখ ফজলুল হক মণি ছিলেন প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি। করোনার কারণে এবার যথাসময়ে এই অনুষ্ঠান হতে পারেনি।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন