default-image

রাজশাহীতে ব্যস্ত সড়ক বন্ধ করে সমাবেশ করেছে রাজশাহী বিভাগীয় বাস-ট্রাক মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদ। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন নৌপরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান। গতকাল বুধবার নগরের শিরোইল বাস টার্মিনালের পাশে চাঁপাইনবাবগঞ্জ-নাটোর সড়কে এ সমাবেশ হয়। এতে ভোগান্তিতে পড়েন সাধারণ মানুষ।
বিকেল চারটায় সমাবেশ শুরু হলেও সকাল থেকেই ওই রাস্তায় গাড়ি চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়। সকালে মঞ্চের কাছে গিয়ে দেখা যায়, শ্রমিক ইউনিয়নের সদস্যরা লাঠি ও বাঁশি হাতে যানবাহন অন্য রাস্তায় ফিরিয়ে দিচ্ছেন। কয়েকজন সাইকেল কাঁধে তুলে পার হতে যাচ্ছিলেন। কিন্তু শ্রমিক ইউনিয়নের লোকজন তাতেও বাধা দেন। এ সময় একজন মোটরসাইকেল আরোহী বলেন, ‘রাস্তা বন্ধ করে সমাবেশ করার এই সংস্কৃতি বন্ধ করা উচিত। মানুষ এই সমাবেশ দেখতে চায় না। এটা নেতাদের বোঝা উচিত।’
বিকেলে গিয়েও একই দৃশ্য চোখে পড়ে। ভদ্রা মোড় থেকে কামারুজ্জামান চত্বর পর্যন্ত সড়কে সব ধরনের যান চলাচল সন্ধ্যা পর্যন্ত বন্ধ ছিল। এর ফলে সব গাড়ি বিকল্প রাস্তায় চলে। চরম ভোগান্তিতে পড়েন সাধারণ মানুষ।
মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সড়ক সম্পাদক মোহাম্মদ আদিল বলেন, টার্মিনালের পাশেই তাঁদের সারা দিন কাজ করতে হয়। তাই সমাবেশের জন্য এর চেয়ে উপযুক্ত জায়গা আর নেই। তিনি বলেন, পাশে আরও সড়ক রয়েছে, তাই জনগণের খুব অসুবিধা হওয়ার কথা নয়। যানবাহন বন্ধ রাখার ব্যাপারে তিনি বলেন, শুধু রাজশাহীর মালিক ও শ্রমিকেরা সমাবেশের জন্য কাজ বন্ধ রেখেছেন। কিন্তু বাইরের মালিক ও শ্রমিকদের গাড়ি চলছে।
সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে খালেদা জিয়ার উদ্দেশে শাজাহান খান বলেন, ‘যে দানব মানুষ খুন করে, যে দানব মানুষের রক্ত চুষে খায়, তার বাইরে থাকার দরকার নেই। তাকে অবিলম্বে খাঁচার ভেতর বন্দী করুন। তাকে গ্রেপ্তার করুন।’ পেট্রলবোমায় দগ্ধ কয়েকজন শ্রমিককে পাশে নিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘আপনি কি এই শ্রমিকদের প্রতিপক্ষ বানাতে চান? এদেরকে পুড়িয়ে মারতে চান? আপনার সেই ইচ্ছা কোনো দিন পূরণ হবে না। যেদিন এই বাংলার মানুষ একসঙ্গে আপনার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াবে, সেদিন আপনার এই দেশে আর জায়গা হবে না। আপনি পাকিস্তান যাওয়ার জন্য প্রস্তুতি নিন।’
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির মহাসচিব খন্দকার এনায়েত উল্যাহ বলেন, ‘রাত্রীকালীন কোচ চলাচল বন্ধ রাখার ফলে নাশকতার ঘটনা অনেকটাই কমে গেছে। তাই আমরা আরও কিছুদিন নৈশকোচ বন্ধ রাখতে চাই। আগামী সপ্তাহের শেষের দিকে নৈশকোচ চালু হতে পারে।’
রাজশাহী সড়ক পরিবহন গ্রুপের সভাপতি এনামুল হকের সভাপতিত্বে সমাবেশে আরও বক্তব্য দেন পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী মশিউর রহমান, বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কেন্দ্রীয় কমান্ড কাউন্সিলের চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) হেলাল মোর্শেদ খান বীর বিক্রম, রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটন, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক ওসমান আলী প্রমুখ।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন