সুন্দরবন রক্ষা জাতীয় কমিটির আহ্বায়ক এবং আইন ও সালিশ কেন্দ্রের নির্বাহী পরিচালক সুলতানা কামাল বলেছেন, সুন্দরবনের ওপর হামলা অতীতেও হয়েছে, এখনো হচ্ছে। সরকারি নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে এর ভেতর দিয়ে জলযান চলছে। আর রামপালে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণের প্রক্রিয়া সুন্দরবন ধ্বংসের চূড়ান্ত পদক্ষেপ। সুন্দরবনের মতো অতি গুরুত্বপূর্ণ বনটি ধ্বংস হলে শত চেষ্টায়ও তা ফিরে পাওয়া যাবে না। যে প্রকল্প জীবনকে বিপর্যস্ত করে, প্রকৃতি এবং প্রাণিকুলকে বিপন্ন করে সে রকম উন্নয়ন প্রকল্প বন্ধ করতে নিয়মতান্ত্রিকভাবে যা যা করা দরকার তা-ই করা হবে।
গতকাল শনিবার দুপুরে খুলনার উমেশচন্দ্র পাবলিক লাইব্রেরি মিলনায়তনে ‘সুন্দরবন রক্ষায় কনভেনশন’-এ প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
সুলতানা কামাল বলেন, ‘দেশে বিদ্যুতের প্রয়োজন আছে, তবে তা সুন্দরবন নষ্ট করে নয়। বিদ্যুৎকেন্দ্রের অনেক বিকল্প আছে, সুন্দরবনকে ক্ষতবিক্ষত করে বিদ্যুৎ প্রকল্প বাস্তবায়ন করার কোনো প্রয়োজন নেই। অথচ এই প্রকল্পের বিরুদ্ধে কেউ কথা বললে তাঁর দেশপ্রেম নিয়ে প্রশ্ন তোলা হচ্ছে। তারপরও সুন্দরবনকে ধ্বংসের হাত থেকে রক্ষা করতে হবে, আমরা রক্ষা করতে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ।’
মানবসৃষ্ট দুর্ভোগ থেকে সুন্দরবনকে রক্ষার জন্য তেল-গ্যাস-খনিজসম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটি, সুন্দরবন রক্ষা জাতীয় কমিটি, বাংলাদেশ পরিবেশ আইনবিদ সমিতি (বেলা), খুলনা নাগরিক সমাজ, সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন), বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা), কোস্টাল ডেভেলপমেন্ট পার্টনারশিপ (সিডিপি), ছাপাবৃক্ষ, মংলা নাগরিক সমাজ, মংলা-ঘসিয়াখালী চ্যানেল রক্ষা কমিটি যৌথভাবে এই কনভেনশনের আয়োজন করে। কনভেনশনের উদ্বোধন করেন তেল-গ্যাস-খনিজসম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির আহ্বায়ক প্রকৌশলী শেখ মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ। ‘কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র-সুন্দরবন ও তৎসংলগ্ন এলাকায় তার প্রভাব’ বিষয়ে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক আবদুল্লাহ হারুন চৌধুরী।
কনভেনশনে বিশেষজ্ঞরা বলেন, বিদ্যুৎকেন্দ্র থেকে যে ধোঁয়া এবং ছাই বের হবে তা বনের জীববৈচিত্র্য এবং প্রাকৃতিক সম্পদের মারাত্মক ক্ষতি করবে। এ ছাড়া কয়লা পরিবহনের সময়ও তা সুন্দরবনের বায়ু এবং পানিকে দূষিত করবে। বনের দুই পাড়ে ভাঙন সৃষ্টি করবে। বন্য প্রাণীর ওপরও ক্ষতিকর প্রভাব পড়বে। ইরাবতী ডলফিনসহ বিপন্ন প্রায় প্রাণিকুল ধ্বংস হবে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0