ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের নেতা রিয়াজুল হক খান মিল্কি হত্যা মামলার আসামি সোহান মাহমুদ ওরফে সোহেল মাহমুদকে স্ত্রী হত্যা মামলায় গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এই মামলায় তাঁর বাবা-মাকেও গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গতকাল শনিবার তাঁদের আদালতে পাঠিয়ে সাত দিনের রিমান্ডের আবেদন জানালে আদালত তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।
রিয়াজুল হত্যা মামলায় জামিনে ছিলেন সোহেল। খিলগাঁও থানার পুলিশ জানায়, খবর পেয়ে গত বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত পৌনে তিনটার দিকে খিলগাঁওয়ের দক্ষিণ বনশ্রীর এল ব্লকের একটি বাসা থেকে সোহেলের স্ত্রী মার্জিয়ার লাশ উদ্ধার করা হয়। খাটে থাকা লাশের নাক দিয়ে ফোঁটা ফোঁটা পানি বের হচ্ছিল। পরে লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ মর্গে পাঠানো হয়। মার্জিয়ার মৃত্যু সন্দেহজনক মনে হওয়ায় ওই বাসা থেকে সোহেল, তাঁর বাবা আল আমিন ও মা আয়েশা বেগমকে আটক করে থানায় নেওয়া হয়। পরে মার্জিয়ার মামা হাবিবুল্লাহ ওই তিনজনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা করেন। গতকাল দুপুরে ওই মামলায় তাঁদের তিনজনকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতে পাঠানো হয়।
খিলগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুস্তাফিজ ভূঁইয়া বলেন, এজাহারে পারিবারিক দ্বন্দ্ব ও দাবি করা পাঁচ লাখ টাকা না দেওয়ায় মার্জিয়াকে পরিকল্পিতভাবে হত্যার অভিযোগ আনা হয়েছে। রিমান্ডে আসামিদের জিজ্ঞাসাবাদ করে ঘটনার রহস্য উদ্ঘাটন করা হবে।
মার্জিয়ার ভাই আরিফুর রহমান প্রথম আলোকে বলেন, রিয়াজুল হত্যা মামলায় সোহেল গ্রেপ্তার হয়েছিলেন। পরে জামিনে কারাগার থেকে বের হওয়ার পর সোহেল মার্জিয়ার কাছে পাঁচ লাখ টাকা দাবি করেছিলেন। এ নিয়ে পারিবারিক কলহের সৃষ্টি হয়।
শুক্রবার ঢাকা মেডিকেল কলেজ মর্গে ময়নাতদন্ত শেষে মার্জিয়ার লাশ খুলনার টুটপাড়ায় নিজ বাড়িতে নেওয়া হয়। তাঁর বাবা মজিবুর রহমান সৌদিপ্রবাসী। তাঁর আসার অপেক্ষায় লাশ খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের হিমঘরে রাখা হয়েছে। আজ রোববার স্থানীয় কবরস্থানে লাশ দাফন করা হবে।
২০১৩ সালের ২৯ জুলাই মধ্যরাতে গুলশানের একটি বিপণিবিতানের সামনে রিয়াজুলকে গুলি করে হত্যা করে সন্ত্রাসীরা। এ হত্যা মামলায় সোহেল এজাহারভুক্ত আসামি। ওই মামলার তদন্ত সংস্থা র্যা বের দেওয়া অভিযোগপত্রেও তাঁর নাম ছিল। ওই অভিযোগপত্রে কয়েকজনের নাম বাদ পড়ায় রিয়াজুলের পরিবার আদালতে নারাজি আবেদন দেয়। বর্তমানে মামলাটি তদন্ত করছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন