default-image

রোহিঙ্গাদের জন্য ১০০ কোটি ডলারের সহায়তা জোগাড়ের চেষ্টা করছে বিভিন্ন দাতা দেশের সরকার। কিন্তু এ জন্য মিয়ানমারে এই মুসলিম জনগোষ্ঠীর ওপর যে অপরাধ সংঘটিত করা হয়েছে, তা গণহত্যা ও মানবতাবিরোধী অপরাধ বলে স্বীকৃতি দেওয়া প্রয়োজন। মানবাধিকার সংগঠন ফোর্টিফাই রাইটস গতকাল বুধবার দাতা দেশগুলোর প্রতি এ আহ্বান জানিয়েছে।

ইউএনবির প্রতিবেদনে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) ও জাতিসংঘ শরণার্থী সংস্থা বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গা ও তাদের আশ্রয় প্রদানকারীদের (কক্সবাজারের স্থানীয় বাসিন্দা) জন্য মানবিক সহায়তা তহবিল গড়তে আজ বৃহস্পতিবার এক ভার্চ্যুয়াল দাতা সম্মেলনের আয়োজন করেছে।

এ প্রসঙ্গে ফোর্টিফাই রাইটসের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ম্যাথিউ স্মিথ বলেন, মানবিক সহায়তা চাহিদার মূলে আছে গণহত্যার বিষয়টি। তাই সরকারগুলোকে ওই অপরাধকে গণহত্যা বলে স্বীকৃতি দেওয়া প্রয়োজন। তিনি আরও বলেন, ‘আমরা যদি কখনো গণহত্যামুক্ত একটি বিশ্বে বসবাস করার আশা করি, তবে আমাদের এটি চিহ্নিত করতে হবে। এ ধরনের অপরাধ প্রকাশ পাচ্ছে। মূল অপরাধ চিহ্নিত করতে ব্যর্থ হলে বছরের পর বছর তহবিল জোগাড় করতে শুধু ঠেলাঠেলিই করতে হবে।’

বিজ্ঞাপন

চলতি সপ্তাহে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেওকে রিফিউজি ইন্টারন্যাশনাল ও আরও ৩৩ সংগঠনের সঙ্গে লেখা এক যৌথ চিঠিতে ফোর্টিফাই রাইটস যুক্তরাষ্ট্র সরকারের প্রতি রোহিঙ্গাদের ওপর সংঘটিত অপরাধকে গণহত্যার স্বীকৃতি দেওয়ার আহ্বান জানায়।

মন্তব্য পড়ুন 0