default-image

ঢাকায় ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) রাষ্ট্রদূত রেনসে টেরিঙ্ক বলেছেন, স্বেচ্ছায়, মর্যাদাপূর্ণ ও টেকসই রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন নিশ্চিত করার স্বার্থে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে একসঙ্গে কাজ করতে হবে। বুধবার ইউরোপীয় ইউনিয়নের রাষ্ট্রদূতদের নিয়ে ‘ডিকাব টক’ অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে তিনি এ মন্তব্য করেন

রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনের জন্য মিয়ানমারের ওপর যথেষ্ট চাপ দিচ্ছে না ইইউ—এমন এক প্রশ্নের জবাবে রেনসে টেরিঙ্ক বলেন, রোহিঙ্গারা মিয়ানমারে ফিরে যেতে চায়। আমাদের তাদের পাশে দাঁড়ানো উচিত।’ তিনি আরও বলেন, ‘ইইউ একা মিয়ানমারের ওপর চাপ দিতে পারে না। শুধু ইইউর দিকে অভিযোগের আঙুল তোলা ঠিক নয়। অন্য দেশগুলোর দিকেও তাকান। ভারত, চীন এবং আসিয়ানের দেশগুলোর দিকে তাকিয়ে দেখুন। এটা ঠিক যে ভূরাজনৈতিকভাবে এ সমস্যার সমাধান সহজ নয়।’

বিজ্ঞাপন

রোহিঙ্গাদের ভাসানচরে স্থানান্তরের বিষয়ে এক প্রশ্নের উত্তরে ইইউ রাষ্ট্রদূত বলেন, ভাসানচরে রোহিঙ্গারা স্বেচ্ছায় গেলে এবং জাতিসংঘ আপত্তি না করলে ইউরোপীয় ইউনিয়নেরও কোনো আপত্তি নেই। তবে জাতিসংঘের কারিগরি ও মানবিক সুরক্ষা দলের ভাসানচর সফরের আগে এ নিয়ে কথা বলাটা ঠিক হবে না। রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানের ক্ষেত্রে আনান কমিশনের প্রতিবেদন বাস্তবায়ন গুরুত্বপূর্ণ বলে মত দেন তিনি।

ডিকাব সভাপতি আঙ্গুর নাহারের সঞ্চালনায় ওই আলোচনায় আরও অংশ নেন ঢাকায় নেদারল্যান্ডসের রাষ্ট্রদূত হ্যারি ভারওয়েজ, সুইডেনের রাষ্ট্রদূত আলেক্সান্দ্রা বার্গ ফন লিন্ডে, ইতালির রাষ্ট্রদূত এনরিকো নুনজিয়াতা, ডেনমার্কের রাষ্ট্রদূত উইনি এস্ট্রাপ প্যাটারসন ও স্পেনের রাষ্ট্রদূত ফ্রান্সিসকো ব্যানিতেজ।
ডিকাব টকে স্বাগত বক্তৃতা দেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক তৌহিদুর রহমান।

মন্তব্য করুন