default-image

লকডাউনে যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল বন্ধ থাকবে। তবে জরুরি পণ্যবাহী ট্রেন চলবে। আজ শনিবার প্রথম আলোকে এ কথা জানিয়েছেন রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম।

এর আগে আজ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের গণমাধ্যমকে জানান, সরকার সোমবার থেকে এক সপ্তাহ সারা দেশে লকডাউনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেনও আজ মুঠোফোনে প্রথম আলোকে লকডাউনের কথা জানান।

বিজ্ঞাপন

এ অবস্থায় ট্রেন চলাচলের কী হবে জানতে চাইলে রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম প্রথম আলোকে বলেন, এর আগেও যাত্রীবাহী ট্রেন বন্ধ ছিল। এবারও বন্ধ থাকবে। তবে জরুরি পণ্যবাহী রেল চলবে। আগের ছুটিতেও তা ছিল। তবে এ বিষয়গুলোর লকডাউনের প্রজ্ঞাপনে স্পষ্ট করা হবে।

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের শুরুতে গত বছরের ২৪ মার্চ সরকার অফিস-আদালত বন্ধের ঘোষণা দেয়। গত বছরের ২৬ মার্চ থেকে সড়ক ও রেল যোগাযোগও বন্ধের সিদ্ধান্ত হয়। কিন্তু ২৪ মার্চ থেকেই রাজধানীর কমলাপুর স্টেশনসহ বিভিন্ন রেলস্টেশনে মানুষের ঢল নামে। ওই দিন রাতেই কিছু কিছু মেইল ও লোকাল ট্রেনের চলাচল বাতিল করা হয়। পরদিন সন্ধ্যায় সব ধরনের যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল বন্ধের ঘোষণা দেওয়া হয়। এরপর গত বছরের ৩১ মে আট জোড়া আন্তনগর ট্রেন চালু করা হয়। গত বছরের ৩ জুন আরও ১১ জোড়া আন্তনগর ট্রেন বাড়ানো হয়। এরপর ধাপে ধাপে সব ধরনের ট্রেন চলাচল শুরু হয়।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন