নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলার রোয়াইলবাড়ি ইউনিয়নের কুতুবপুর গ্রামের শতদল পাঠাগারে আগুন লেগে পাঁচ শতাধিক বই পুড়ে গেছে। গত রোববার রাতে এই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে।
পাঠাগার কর্তৃপক্ষ ও এলাকার কয়েকজন জানান, কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদের পৈতৃক বাড়ি কুতুবপুর গ্রামে ১৯৯৩ সালে শতদল পাঠাগারটি প্রতিষ্ঠা করা হয়। পাঠাগারটিতে হুমায়ূন আহমেদ ও তাঁর ভাই মুহম্মদ জাফর ইকবালের লেখা দুই শতাধিক বইসহ মূল্যবান পাঁচ শতাধিক বই ছিল। এলাকার শিশু-কিশোরসহ নানা শ্রেণি-পেশার মানুষ এই পাঠাগারে বই পড়তে ছুটে আসতেন। রোববার রাতে পাঠাগারটিতে আগুন লেগে সব বই ও আসবাবপত্র পুড়ে যায়। তা ছাড়া আগুনে পাঠাগারের পাশে আবু ইছহাকের মনিহারি দোকানটিও ভস্মীভূত হয়েছে।
পাঠাগার পরিচালনা পর্ষদের সদস্য মোজাম্মেল হক বলেন, ‘এই পাঠাগারটি নিয়ে আমাদের অনেক স্বপ্ন ছিল। কিন্তু এখন তা শেষ হয়ে গেছে। পাঠাগারের পাশের দোকানে বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।’

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন