ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে করা মামলায় বাউল শিল্পী শরিয়ত সরকার বয়াতিকে কেন জামিন দেওয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল দিয়েছেন হাইকোর্ট। জামিন চেয়ে শরিয়ত সরকারের করা আবেদনের শুনানি নিয়ে আজ বুধবার বিচারপতি মো. এমদাদুল হক ও বিচারপতি মো. আকরাম হোসেন চৌধুরীর সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রুল দেন।

দুই সপ্তাহের মধ্যে রাষ্ট্রপক্ষকে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে। ওই মামলায় জামিন চেয়ে শরিয়ত সরকার আবেদন করলে ২৯ জানুয়ারি টাঙ্গাইলের জেলা ও দায়রা জজ তাঁর জামিন না মঞ্জুর করেন। পরে এর বিরুদ্ধে জামিন চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন করেন শরিয়ত সরকার, যার ওপর আজ শুনানি হয়।

আদালতে আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী মনিরা হক। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মো. গিয়াস উদ্দিন আহম্মেদ।

গত ১১ জানুয়ারি ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলার বাশিল এলাকা থেকে শরিয়ত সরকারকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাঁর বাড়ি টাঙ্গাইলের মির্জাপুরের আগধল্যা গ্রামে। একই গ্রামের ফরিদুল ইসলাম নামের এক ব্যক্তি ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দেওয়ার অভিযোগ এনে মামলা করেছিলেন।

মামলায় অভিযোগ আনা হয়, শরিয়ত সরকার কয়েক দিন আগে ঢাকার ধামরাই এলাকায় এক অনুষ্ঠানে গানের আগে বক্তব্যে বলেছিলেন, গান-বাজনা হারাম বলে ইসলাম ধর্মে কোনো উল্লেখ নেই। কেউ প্রমাণ দিলে তিনি গান ছেড়ে দেবেন। সেই বক্তব্যের ভিডিও ইউটিউবে দেখেই বাদী এ মামলা করেছেন।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0