শাপলা তুলতে গিয়ে পানিতে ডুবে গেলেন

বিজ্ঞাপন
default-image

রাজশাহীর বাগমারা উপজেলায় বন্যার পানি থেকে শাপলা তুলতে গিয়ে পানিতে ডুবে মারা গেছেন এক গৃহবধূ। নৌকা থেকে শাপলা তোলার চেষ্টা করলে নৌকা হেলে পানিতে ডুবে গেলে মৃত্যু হয় তাঁর। আজ সোমবার সকালে রাজশাহীর বাগমারা উপজেলায় এ ঘটনা ঘটে।

মারা যাওয়া গৃহবধূর নাম আকলিমা বেগম (৩২)। তিনি সিরাজগঞ্জ জেলার সদর উপজেলার ছনগাছা গ্রামের হাফিজুলের স্ত্রী। বাগমারা উপজেলার হামিরকুৎসা ইউনিয়নের কোনাবাড়িয়া গ্রামে তিনি বেড়াতে এসেছিলেন।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ঢাকার একটি পোশাক কারখানায় চাকরির সুবাদে কোনাবাড়িয়া এলাকার আবদুল হান্নানের পরিবারের সঙ্গে গৃহবধূ আকলিমা বেগমের ঘনিষ্ঠতা গড়ে ওঠে। সে সুবাদে গতকাল রোববার আকলিমা দু্‌ই সন্তান নিয়ে আবদুল হান্নানের বাড়িতে বেড়াতে আসেন। কোনাবাড়িয়া এলাকায় বন্যার পানি দেখতে পেয়ে আকলিমা নৌকায় চড়ে ঘুরে বেড়ানোর আগ্রহ দেখান।
পরে বাড়ির পাশে যশোই বিলে নৌকা নিয়ে ঘুরতে বের হন। আকলিমা বেগমের সঙ্গে তাঁর তিন বছরের এক ছেলে ছাড়াও স্থানীয় দুই নারীসহ মোট পাঁচজন ছিলেন। আবদুল হান্নানের ১০ বছরের বাকপ্রতিবন্ধী ছেলে নৌকার বৈঠা ঠেলে তা নিয়ন্ত্রণ করছিল। সকাল সাড়ে ৯টার দিকে যশোই বিলের এক স্থানে পানিতে শাপলা দেখতে পেয়ে তা তুলতে যান আকলিমা। ওই সময় নৌকা হেলে ডুবে যায়। আকলিমা বেগম সাঁতার না জানায় পানিতে ডুবে যান। অন্যরা আকলিমার তিন বছরের সন্তানকে নিয়ে সাঁতরে তীরে উঠে আসতে সক্ষম হন। পরে স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় আকলিমা বেগমকে পানি থেকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে স্থানীয় পল্লিচিকিৎসকের কাছে নেওয়া হলে তিনি তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।


আজ দুপুরে গৃহবধূর লাশ তাঁর গ্রামের বাড়িতে পাঠানো হয়।

বাগমারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আতাউর রহমান বলেন, পরিবারের কাছে আকলিমা বেগমের লাশ হস্তান্তর করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন