বিবৃতিতে বলা হয়, ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দেওয়ার অভিযোগে হৃদয় চন্দ্র মণ্ডলের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। স্কুলে বিজ্ঞানশিক্ষার ক্লাসে বিজ্ঞান ও ধর্ম নিয়ে আলোচনা করছিলেন তিনি। ওই আলোচনা এক শিক্ষার্থী মুঠোফোনের ভিডিওতে ধারণ করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে শেয়ার করেন।

ঘটনার দুই দিন পর ২২ মার্চ মুন্সিগঞ্জ সদর উপজেলার বিনোদপুর রাম কুমার উচ্চবিদ্যালয়ের বিজ্ঞান ও গণিতের শিক্ষক হৃদয় চন্দ্র মণ্ডল গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলেন বিষয়টি নিয়ে। তিনি বলেন, শিক্ষার্থী ও স্থানীয় লোকজন তাঁর শাস্তির দাবিতে স্কুলের বাইরে বিক্ষোভ করেন।

ঘটনার পরদিন স্কুলের এক সহকারী থানায় হৃদয় চন্দ্র মণ্ডলের বিরুদ্ধে মামলা করেন। এর পরই তাঁকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। বর্তমানে তিনি কারাগারে। আদালতে দুদফা জামিন আবেদন করা হলেও তিনি জামিন পাননি। রোববার এ মামলায় জেলা ও দায়রা জজ আদালতে পরবর্তী শুনানি হওয়ার কথা রয়েছে।

অ্যামনেস্টির দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চলের উপপরিচালক স্মৃতি সিংহ বলেন, ‘হৃদয় চন্দ্র মণ্ডল স্বাধীনভাবে নিজের মত প্রকাশ করেছেন। তাঁকে অবিলম্বে ও নিঃশর্তভাবে মুক্তি দেওয়া উচিত।’

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন