সুবিধাবঞ্চিত শিশুসহ ২৬০টি শিশুর সঙ্গে সময় কাটালেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। গতকাল রোববার বঙ্গভবনে আয়োজিত ‘রাষ্ট্রপতির সাথে শিশুদের সাক্ষাৎ’ শীর্ষক এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এই শিশুরা রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সময় কাটানোর সুযোগ পায়। মহিলা ও শিশুবিষয়ক মন্ত্রণালয় সুযোগটি তৈরি করে দেয়। খবর বাসসের।
রাষ্ট্রপতি শিশুদের উদ্দেশে বলেন, ‘তোমাদের দেশকে ভালোবাসতে হবে। দেশের গর্বিত নাগরিক হিসেবে তোমাদের নিজেদের প্রস্তুত করতে হবে, কেননা ভবিষ্যৎ রাষ্ট্রপতি তোমাদের মধ্য থেকেই হবে।’
রাষ্ট্রপতির অতিথি হিসেবে এসব শিশু বঙ্গভবনে সারা দিন হাসি-আনন্দ ও খেলাধুলায় মেতে ছিল। বঙ্গভবন এলাকার সবুজ মাঠে দৌড়, বল নিক্ষেপসহ বিভিন্ন খেলাধুলা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে তারা অংশ নেয়। রাষ্ট্রপতি তাদের সঙ্গে দুপুরের খাবার গ্রহণ করেন। শিশুরা রাষ্ট্রপতির কাছ থেকে তাঁর শৈশবের নানান ঘটনা জানতে চান। শিশুদের সঙ্গে নিজের শৈশবের কষ্ট, আনন্দ ও হাসিমাখা দিনগুলোর স্মৃতিচারণা করেন তিনি। এ সময় রাষ্ট্রপতি শিশুদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন। তিনি বলেন, ‘এখনো আমি ছাত্র এবং তোমরা সবাই আমার শিক্ষক।’
অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘তোমরা খুবই ভাগ্যবান। একটি স্বাধীন দেশের নাগরিক হিসেবে তোমরা বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপ্রধানের সাথে সাক্ষাৎ করতে পারছ। আমি মনে করি, এটা তোমাদের জীবনের একটি স্মরণীয় ও ব্যতিক্রমী ঘটনা।’
রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘আমি দেশের প্রত্যন্ত এলাকায় বেড়ে উঠেছি। হাওরের ঢেউ, প্রকৃতি ও পাখিরা ছিল আমার শৈশবের বন্ধু এবং সংগ্রাম ছিল দৈনন্দিন জীবনের অংশ।’
রাষ্ট্রপতি শিশুদের সঙ্গে কথা বলার সময় জিহাদের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করে তার আত্মার শান্তি কামনা করেন এবং তার শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জানান। পরে শিশুরা তাদের আঁকা একটি ছবি রাষ্ট্রপতিকে উপহার দেয়।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন