default-image

ডাচ-বাংলা ব্যাংক-প্রথম আলো গণিত উৎসব-২০১৯ তো শেষ কিন্তু এরপরও তো রয়ে যায় প্রস্তুতির কাজ। ইংল্যান্ডের সামারসেটের বাথ শহরে বসবে ৬০তম আন্তর্জাতিক গণিত উৎসব, সেখানে যাওয়ার আগে বাংলাদেশ দলকে নিতে হবে জোর প্রস্তুতি।

সেই প্রস্তুতির জের ধরে আজ ঢাকায় শুরু হয়ে গেল পঞ্চদশ জাতীয় গণিত ক্যাম্প। সকাল থেকেই জাতীয় উৎসবের পদকজয়ীরা যোগ দেয় লালমাটিয়ার আবাসিক ক্যাম্পে। এ বছর সর্বোচ্চ ৮৫ জন শিক্ষার্থীকে নিয়ে করা হচ্ছে জাতীয় ক্যাম্প, যার ২০ জন প্রাইমারিতে, ২৫ জন জুনিয়রে এবং ৩৫ জন জাতীয় পর্যায়ের ক্যাম্পে অংশ নিয়েছে।

গণিত ক্যাম্প বলতে যেমন ঘাড় ভেঙে অঙ্ক কষার কথা, প্রথম দিন ক্যাম্পে সে রকম কিছুই দেখা যায়নি। বরং পুরোনোরা ব্যস্ত ছিল একই জেলা থেকে আসা বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডায় আর নতুনরাও সুযোগমতো বানিয়ে নিচ্ছে বন্ধু, ব্যস্ত একমাত্র প্রাইমারির শিক্ষার্থীরা। আসার পর প্রথমে তারা খুঁজে নেওয়ার চেষ্টা করে শ্রেণিকক্ষ। এমনকি জাতীয় উৎসবের প্রশ্নপত্র নিয়েও নাড়াচাড়া করতে দেখা যায় তাদের। সুযোগ বুঝে বড়রা তাদের ক্লাস নেওয়াও শুরু করে দিই।

জাতীয় উৎসবে প্রথমবারের মতো অংশ নিয়েছে রংপুর বিয়াম ল্যাবরেটরি স্কুল অ্যান্ড কলেজের ষষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থী নওশীন আফিয়া জাহান। নওশীন বলে, ‘প্রথমবারের মতো গণিত অলিম্পিয়াডে যোগ দিয়ে প্রথমবারেই গণিত ক্যাম্পে আসতে পেরে খুব ভালো লাগছে। আমি খুব খুশি, আমার শিক্ষকেরাও খুব খুশি হয়েছেন আমার এই সাফল্যে।’

নাহিন মুনকারের এই বছর চতুর্থ জাতীয় ক্যাম্প। নাহিন পড়ছে সরকারি বিজ্ঞান কলেজে একাদশ শ্রেণিতে। সে বলে, ‘ক্যাম্প শুধু আমাদের গণিত শেখায় না, ক্যাম্প আমাদের বন্ধুত্ব শেখায়, এমনকি জীবনে সামনে গিয়ে আমরা কী করব, সেই বিষয়েও ক্যাম্পে আমরা শিক্ষা পাই।’

বাংলাদেশ গণিত অলিম্পিয়াড কমিটির তত্ত্বাবধানে এবং ডাচ-বাংলা ব্যাংক ও প্রথম আলোর সহযোগিতায় এই ক্যাম্পের প্রাথমিক পর্যায় ১৪ মার্চ, জুনিয়ার ১৭ মার্চ এবং জাতীয় পর্যায় ২৩ মার্চ পর্যন্ত চলবে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0