যশোরে ৩০৫ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মাণাধীন শেখ হাসিনা সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্কের কাজ আগামী ৩০ জুনের মধ্যে শেষ হবে আশা করা হচ্ছে। এ পার্কে ১০ হাজার তরুণ-তরুণী কাজের সুযোগ পাবেন। ইতিমধ্যে দেশি-বিদেশি ১৩টি আইটি কোম্পানি এ পার্কে বিনিয়োগের জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়েছে। এখানে বিনিয়োগের জন্য আরও ২৪টি বিনিয়োগকারী প্রতিষ্ঠান আবেদন করেছে। তাদের কাগজপত্র যাচাই-বাছাই চলছে।
শেখ হাসিনা সফটওয়্যার পার্ক প্রকল্পের অগ্রগতি পর্যালোচনা সভায় তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহ্মেদ পলক গতকাল রোববার বিকেলে এসব কথা বলেন।
পার্কের মিলনায়তনে ওই সভায় প্রতিমন্ত্রী বলেন, তথ্যপ্রযুক্তি খাত থেকে ৫ বিলিয়ন ডলার আয়ের লক্ষ্য নিয়ে দেশের ২৮টি অঞ্চলে ২৮টি আইটি পার্ক নির্মাণের কাজ শুরু করা হয়েছে। দেশের জনসংখ্যার ৬৫ শতাংশ তরুণ-তরুণী। তাঁদের জ্ঞানভিত্তিক দক্ষ যুবসমাজ হিসেবে গড়ে তোলার লক্ষ্যে দেশের সাতটি অঞ্চলে শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং অ্যান্ড ইনকিউবেশন সেন্টার স্থাপন করা হচ্ছে।
প্রকল্পের কাজের অগ্রগতির ব্যাপারে তিনি বলেন, যশোর শহরের শংকরপুর এলাকার ১২ একর ১৩ শতাংশ জমির ওপর ১৫ তলাবিশিষ্ট মাল্টি টানেল ভবন, ১২ তলা আবাসিক ভবনসহ, তিনতলা মাল্টিপারপাস ভবন নির্মাণ করা হচ্ছে। সভায় উপস্থিত ছিলেন প্রকল্পের পরিচালক জাহাঙ্গীর আলম, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য আবদুস সাত্তার, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এটুআই প্রকল্পের পরিচালক (উদ্ভাবন) মোস্তাফিজুর রহমান, যশোরের জেলা প্রশাসক হুমায়ুন কবীর, আইসিটি বিশেষজ্ঞ মুনীর হাসান প্রমুখ।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন