default-image

শেরপুরে পুলিশ, স্বাস্থ্যকর্মীসহ আরও ছয়জনের করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। তাঁদের মধ্যে শেরপুর সদরে চারজন ও নালিতাবাড়ী উপজেলায় দুজন রয়েছেন।

এ নিয়ে জেলায় কোভিডে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়াল ২৬০ জন। তাঁদের মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ২২০ জন। মৃত্যু হয়েছে চারজনের। শনাক্ত হিসাবে সুস্থ হওয়ার হার ৮৬ ভাগ।

সিভিল সার্জন এ কে এম আনওয়ারুর রউফ এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাব থেকে নমুনার পরীক্ষার প্রতিবেদন আসে।

জেলা ও উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্র জানায়, নতুন করে শনাক্ত রোগীদের মধ্যে আছেন সদর থানার কনস্টেবল জাহাঙ্গীর আলম ও নালিতাবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল টেকনোলজিস্ট (রেডিওলজি) শহিদুল ইসলাম।

গত সোমবার সদর থানার উপপরিদর্শক রবিউল ইসলাম ও এক কনস্টেবলের করোনা শনাক্ত হওয়ার পর তাঁদের সংস্পর্শে আসা থানায় কর্মরত অন্য পুলিশ সদস্যদের নমুনা সংগ্রহ করা হয়। তাতে কনস্টেবল জাহাঙ্গীরের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

কনস্টেবল জাহাঙ্গীর জেলা সদর হাসপাতাল ও মেডিকেল টেকনোলজিস্ট শহিদুল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের করোনা আইসোলেশন ইউনিটে ভর্তি হয়েছেন। অন্যরা বাসায় আইসোলেশনে আছেন।

সিভিল সার্জন আনওয়ারুর রউফ বলেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, সামাজিক সংস্পর্শের কারণে ছয়জন করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন। তাই করোনার বিস্তার রোধে মাস্ক ব্যবহারসহ কঠোরভাবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার জন্য সবার প্রতি অনুরোধ করেন তিনি।

গতকাল পর্যন্ত শনাক্তদের মধ্যে শেরপুর সদরে ১০৯, নকলায় ৪৯, নালিতাবাড়ীতে ৫৫, ঝিনাইগাতীতে ২৫ ও শ্রীবরদী উপজেলায় ২২ জন রয়েছেন।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন