প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, শ্রমিকদের কল্যাণ নিশ্চিত করাই তাঁর সরকারের অন্যতম লক্ষ্য। আর এ লক্ষ্য অর্জনে সরকার নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। তিনি গতকাল রোববার শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় পরিদর্শনকালে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের উদ্দেশে দেওয়া ভাষণে এসব কথা বলেন। খবর বাসসের।
প্রধানমন্ত্রী শ্রমিকদের মান উন্নয়নে তাঁদের প্রশিক্ষণ এবং উপযুক্ত মজুরি, কাজের পরিবেশ ও নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সংশ্ল্লিষ্ট ব্যক্তিদের নির্দেশ দেন। তিনি বলেন, তাঁর সরকারের অন্যতম দায়িত্ব হলো শ্রমসংশ্ল্লিষ্ট আইনসমূহ বাস্তবায়ন, শ্রম আদালতের মাধমে শ্রমক্ষেত্রে সুবিচার, শ্রমিকদের জন্য ন্যূনতম মজুরি বাস্তবায়নসহ তাঁদের কল্যাণ নিশ্চিত করা।
প্রধানমন্ত্রী ইপিজেডগুলোতে ট্রেড ইউনিয়নের আদলে শ্রমিক ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনকে শ্রম আইনের বিধিতে অন্তর্ভুক্ত করতে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণের পরামর্শ দেন।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, ২০১৫ সালের মধ্যে বর্তমান ষষ্ঠ পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনা বাস্তবায়ন শেষ হলে সপ্তম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনা প্রণয়ন করা হবে। তিনি আশা প্রকাশ করেন, প্রেক্ষিত পরিকল্পনা বাস্তবায়িত হলে ২০২১ সালের মধ্যে মাথাপিছু গড় আয় বর্তমানের এক হাজার ৪৪ ডলার থেকে বেড়ে এক হাজার ৫০০ ডলারে উন্নীত হবে। প্রবৃদ্ধির হার বেড়ে ১০ শতাংশে উন্নীত হবে এবং দারিদ্র্যের হার বর্তমান ২৬ শতাংশ থেকে কমে ১৩ শতাংশে দাঁড়াবে। এ লক্ষ্য অর্জিত হলে ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ একটি মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হবে।
দেশে নারী শ্রমিকের সংখ্যা বেশি উল্ল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী তাঁদের নিরাপত্তা নিশ্চিতসহ প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা এবং তাঁদের জন্য ডরমিটরি নির্মাণের ওপর গুরুত্বারোপ করেন। তিনি পোশাক কারখানাসহ অন্য কারখানাগুলোতে ব্যক্তি উদ্যোগে কেউ রেশনব্যবস্থা চালু করতে চাইলে সরকারের পক্ষ থেকে সহযোগিতার আশ্বাস দেন।
স্বল্প আয়ের মানুষের আবাসন-সুবিধা প্রসঙ্গে শেখ হাসিনা বলেন, ‘যারা বড়লোক, তারা আরও বড়লোক হচ্ছে, অন্যদিকে বস্তি বা অন্য জায়গাগুলোতে গরিব মানুষ মানবেতর জীবন যাপন করছে। এটা গ্রহণযোগ্য নয়।’ তিনি তাঁদের জন্য ন্যূনতম একটি আবাসনব্যবস্থা গড়ে তোলার ওপর জোর দেন।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, বর্তমান সরকার শিশুশ্রম নিরসনে বদ্ধপরিকর। এ লক্ষ্যে ১৯৯৬-২০০১ মেয়াদে পোশাকশিল্প খাত থেকে সম্পূর্ণভাবে শিশুশ্রম প্রত্যাহার করা হয়।
এর আগে প্রধানমন্ত্রী মন্ত্রণালয়ে এসে পৌঁছালে মন্ত্রণালয়ের সচিব মিকাইল শিপার তাঁকে স্বাগত জানান।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন