বরিশালের আগৈলঝাড়া উপজেলার থানেশ্বরকাঠি গ্রামের একটি সংখ্যালঘু পরিবারকে মারধর করে ভিটেমাটিছাড়া করেছে সন্ত্রাসীরা। অসহায় পরিবারটি বাস্তুহারা হয়ে এখন একটি বিদ্যালয়ে আশ্রয় নিয়েছে।
জমিজমা নিয়ে বিরোধের জের ধরে এ হামলা চালানো হয়। এতে যুবলীগের এক নেতার বিরুদ্ধে নেতৃত্ব দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

ভুক্তভোগী ও স্থানীয় লোকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, আগৈলঝাড়ার রত্নপুর ইউনিয়নের থানেশ্বরকাঠি গ্রামের বিনোদ সাধু পৈতৃক সূত্রে পাওয়া ২২ শতাংশ জমিতে বাড়ি করে দীর্ঘ প্রায় ৩০ বছর ধরে পরিবার নিয়ে বসবাস করে আসছেন।
দু-তিন বছর ধরে ওই জমির মালিকানা দাবি করে আসছেন একই গ্রামের তপন সরকার ও স্বপন সরকার। তাঁরা দলবল নিয়ে বাড়িটি দখলে নেওয়ার চেষ্টা করে আসছেন কিছুদিন ধরে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, গত বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে তপন সরকার ও স্বপন সরকারের ভাড়াটে সন্ত্রাসী রত্নপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আবু সাইদ ২৫-৩০ জনের একটি দল নিয়ে বিনোদ সাধুর বাড়িতে হামলা চালায়। হামলাকারীরা ঘরের লোকজনকে বাইরে বের করে দেয়। মালামাল ছুড়ে ফেলে ঘরের বাইরে। এরপর তারা বসতঘরটি ভেঙে নিশ্চিহ্ন করে দিয়ে সেখানে টিনের একটি নতুন ঘর তোলে।

বিনোদ সাধুর স্ত্রী আলো রানী জানান, এতে বাধা দিলে হামলাকারীরা পিটিয়ে তাঁর স্বামী বিনোদ সাধু (৬০), তাঁদের সন্তান রিনা (২২), সিমা (১৫), উজ্জ্বলা (১১), সেতু (৮), সুজা (৫) ও তাপসীকে (২) আহত করে। তাঁরা চিকিৎ সা নিতে হাসপাতালে যেতে চাইলে তাতেও বাধা দেওয়া হয়। পরে স্থানীয়ভাবে চিকিৎ সা নেন। স্থানীয় লোকজন তাঁদের উদ্ধার করে থানেশ্বর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আশ্রয় দেন।
গতকাল শুক্রবার সরেজমিনে দেখা যায়, থানেশ্বর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পরিত্যক্ত ভবনের একটি কক্ষে স্ত্রী ও ছয় মেয়েকে নিয়ে অবস্থান করছেন বিনোদ সাধু।
এ সময় বিনোদ জানান, ঘরের কোনো মালামাল তাঁরা আনতে পারেননি। সবকিছু সন্ত্রাসীরা তছনছ করেছে।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন