default-image

বগুড়ার শেরপুর উপজেলায় খেলতে খেলতে বাড়ির পাশের করোতোয়া নদীতে ডুবে মারা গেছে দুই শিশু। সবার অগোচরে শিশু দুটি নদীতে নেমে যায়। পরে শিশু দুটির লাশ ভেসে ওঠে নদীর তীরে। 

আজ শুক্রবার বিকেলে উপজেলার শাহবন্দেগী ইউনিয়নের শেরুয়া দহপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।
মারা যাওয়া শিশুরা হলো ভ্যানচালক আবদুল করিমের মেয়ে কারিমা (৬) ও চাতালশ্রমিক আবদুর রাজ্জাকের মেয়ে বীথি। কারিমা আবদুল করিমের একমাত্র সন্তান। বীথিরা তিন ভাইবোন ছিল।
আজ বিকেলে ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায়, ওই দুই শিশুর বাড়ি পাশাপাশি। সন্তান হারিয়ে দুই পরিবারে মাতম চলছে।
স্থানীয় লোকজন জানান, শিশু দুটি একসঙ্গে খেলাধুলা করত। তাদের বাড়ির পাশেই করোতোয়া নদী। দুই শিশু একসঙ্গে খেলতে খেলতে কখন নদীতে নেমে গিয়েছিল, পরিবার দুটির কেউ জানেন না। আজ বেলা সাড়ে তিনটা থেকে শিশুদের খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না। খোঁজাখুঁজির একপর্যায়ে বিকেল সাড়ে চারটায় বাড়ির পাশে নদীর তীরে দুই শিশুর লাশ ভেসে ওঠে।
মো. নয়ন নামে স্থানীয় এক ব্যক্তি বলেন, শিশুদের তীর থেকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধারের পর স্থানীয় চিকিৎসাকেন্দ্রে নেওয়া হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক শিশুদের মৃত ঘোষণা করেন।
স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য মো. শাহজামাল শিশু দুটির মৃত্যুর তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।
শেরপুর থানার উপপরিদর্শক আতিকুর রহমান জানান, দুই শিশুর পানিতে পড়ে মৃত্যুর ঘটনা থানায় কেউ অবহিত করেননি।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন