বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

গোলাম সরওয়ার সাপ্তাহিক আজকের সূর্যোদয় পত্রিকার স্টাফ রিপোর্টার।
বাদীর আইনজীবী মো. আশরাফ উদ্দিন খন্দকার প্রথম আলোকে বলেন, সাংবাদিক অপহরণের ঘটনার মামলায় পুলিশ দায়সারা তদন্ত প্রতিবেদন দেয়। তথ্যগত ভুল উল্লেখ করে জড়িত কাউকে শনাক্ত না করে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দেয়। এই প্রতিবেদনের বিরুদ্ধে গত বৃহস্পতিবার আদালতে নারাজি আবেদন করা হয়। রোববার শুনানি শেষে আদালত পিবিআইকে অধিকতর তদন্ত করে প্রকৃত রহস্য উদ্‌ঘাটনের নির্দেশ দেন।

গত বছরের ২৮ অক্টোবর চট্টগ্রাম নগরের ব্যাটারি গলির বাসা থেকে বের হওয়ার কিছুক্ষণ পরই নিখোঁজ হন সাংবাদিক গোলাম সরওয়ার। তিন দিন পর ১ নভেম্বর জেলার সীতাকুণ্ডের খালের পাশের ঝোপের ভেতর থেকে সংজ্ঞাহীন অবস্থায় তাঁকে উদ্ধার করেন স্থানীয় ব্যক্তিরা। পরে অপহরণের শিকার সাংবাদিক গোলাম সরওয়ার কোতোয়ালি থানায় মামলা করেন ওই বছরের ৪ নভেম্বর। মামলায় আসামি করা হয় অজ্ঞাতপরিচয় ছয়জনকে।

মামলার এজাহারে তিনি বলেন, সংবাদ করার কারণে তাঁকে অপহরণ করে নিয়ে মারধর এবং ৫০ হাজার টাকা মুক্তিপণও দাবি করা হয়েছে। গত জুন মাসে নগরের কোতোয়ালি থানা-পুলিশ এই মামলায় চূড়ান্ত প্রতিবেদন দেয়।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন