সাইফ পাওয়ারটেকের বিরুদ্ধে অভিযোগ তদন্ত করবে দুদক

বিজ্ঞাপন
default-image

সাইফ পাওয়ারটেক লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক তরফদার মো. রুহুল আমিনের অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত নিয়েছে দুনীতি দমন কমিশন (দুদক)। দীর্ঘদিন ধরে অভিযোগ ছিল সরকারি প্রতিষ্ঠানকে প্রভাবিত করে বন্দর পরিচালনা কাজে একচেটিয়া বাণিজ্য প্রতিষ্ঠা করেছে বেসরকারি বার্থ অপারেটর সাইফ পাওয়ারটেক লিমিটেড।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আজ বুধবার দুদক প্রধান কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মুহাম্মদ জয়নাল আবেদীনকে অনুসন্ধানকারী কর্মকর্তা নিয়োগ দিয়েছে কমিশন। তাঁকে নির্ধারিত সময়ে অনুসন্ধান করে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। অনুসন্ধানের তদারককারী কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন দুদকের পরিচালক সৈয়দ ইকবাল হোসেন।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

দুদকের দায়িত্বশীল সূত্র জানায়, সাইফ পাওয়ারটেক লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালকের বিরুদ্ধে অভিযোগ, তিনি একচেটিয়া বাণিজ্য প্রতিষ্ঠা করে এবং রাজস্ব ফাঁকির মাধ্যমে কোটি কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনপূর্বক বিদেশে অর্থ পাচারসহ মানিলন্ডারিং করছেন। অভিযোগ পেয়ে দুদক বিষয়টি অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত নেয়।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ২০০৭ সালে কোনো লাইসেন্স ছাড়াই সাইফ পাওয়ারটেক লিমিটেড চট্টগ্রাম বন্দরের কনটেইনার হ্যান্ডেলিংয়ের কাজ নেয়। পরবর্তীতে প্রতিষ্ঠানটি একাই বন্দরের কনটেইনার হ্যান্ডেলিংয়ের প্রায় ৭০ ভাগ কাজ নিয়ন্ত্রণে নিয়ে নেয়। এ ছাড়া ঢাকা ইনল্যান্ড কনটেইনার ডিপো (আইসিডি), পানগাঁও কনটেইনার টার্মিনাল (পিসিটি), চট্টগ্রাম বন্দরের ওভারফ্লো কনটেইনার ইয়ার্ড এবং বন্দরের যন্ত্রপাতি সরবরাহ ও রক্ষণাবেক্ষণের কাজও একচেটিয়া পায় সাইফ পাওয়ারটেক।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন