বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আবহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ মো. ওমর ফারুক প্রথম আলোকে বলেন, সেপ্টেম্বর মাসে সাধারণত এত লঘুচাপ হয় না। জুলাই মাসে এমনটা হয়। এ মাসের ৬ তারিখে প্রথম লঘুচাপ সৃষ্টি হয়। এরপর ১০ তারিখে সৃষ্টি হওয়া লঘুচাপটি গভীর নিম্নচাপে পরিণত হয়। ২১ সেপ্টেম্বর লঘুচাপটি লঘুচাপ আকারেই ছিল। ২৫ তারিখের লঘুচাপ ঘূর্ণিঝড় গুলাবে পরিণত হয়। গুলাব ভারতের ওডিশা উপকূলে আঘাত হানে। এর দুই দিনের মাথায় আরেকটি লঘুচাপ সৃষ্টি হলো বঙ্গোপসাগরে।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, এবার উত্তর-পশ্চিম বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন বাংলাদেশ-পশ্চিমবঙ্গ এলাকায় লঘুচাপটি সৃষ্টি হয়েছে। এটি পশ্চিম-উত্তর পশ্চিম দিকে অগ্রসর হতে পারে। মৌসুমি বায়ু দেশের ওপর সক্রিয় রয়েছে এবং তা উত্তর বঙ্গোপসাগরে মাঝারি থেকে প্রবল অবস্থায় রয়েছে।

আজ মঙ্গলবার সকালে ২৪ ঘণ্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, খুলনা ও বরিশাল বিভাগের অধিকাংশ জায়গায় এবং ঢাকা ও চট্টগ্রাম বিভাগের অনেক জায়গায়; রংপুর, রাজশাহী, ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি হতে পারে। দক্ষিণাঞ্চলের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারী বর্ষণ হতে পারে।

গত ২৪ ঘণ্টায় ফেনীতে দেশের সর্বোচ্চ ৮১ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন