কক্সবাজারের সেন্ট মার্টিন দ্বীপের পশ্চিমে বঙ্গোপসাগরে আজ মঙ্গলবার সকালে যাত্রীবাহী একটি ট্রলার ডুবে গেছে। রোহিঙ্গাদের নিয়ে ট্রলারটি মালয়েশিয়ার দিকে যাচ্ছিল। এ ঘটনায় ১৫ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। আর জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে ৭৩ জনকে।

কোস্টগার্ডের মুখপাত্র সহকারী পরিচালক লে. কমান্ডার এম হামিদুল ইসলাম বলেন, নিহত ব্যক্তিদের মধ্যে ১২ জন রোহিঙ্গা নারী। বাকি তিনটি লাশ শিশুদের। যে ৭৩ জনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে, তাঁদের মধ্যে ২৪ জন পুরুষ, ৪৬ জন নারী ও তিনটি শিশু।

কোস্টগার্ড সূত্র জানায়, আজ সকাল সাতটার দিকে সেন্ট মার্টিন দ্বীপের সাত থেকে আট কিলোমিটার দূরে এ ঘটনা ঘটে। মালয়েশিয়াগামী ট্রলারের যাত্রীরা কক্সবাজারের বিভিন্ন রোহিঙ্গা শিবিরের বাসিন্দা।

সেন্ট মার্টিন কোস্টগার্ডের কমান্ডার লেফটেন্যান্ট নাইম উল হক বলেন, গতকাল সোমবার রাতে টেকনাফ উপকূল দিয়ে দুটি ট্রলার মালয়েশিয়ার উদ্দেশে রওনা হয়। আজ সকাল সাতটার দিকে সাগরের পাথরের সঙ্গে ধাক্কা লেগে একটি ট্রলার ডুবে যায়। উদ্ধার হওয়া কয়েকজন রোহিঙ্গা জানান, দালালদের মাধ্যমে তাঁরা রোহিঙ্গা শরণার্থীশিবির থেকে বের হয়ে মালয়েশিয়া যাচ্ছিলেন।

কোস্টগার্ডের তিনটি দল, বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি), সেন্ট মার্টিন বোট মালিক সমিতিসহ (বিজিবি) বিভিন্ন সংস্থা উদ্ধারকাজে যুক্ত আছে।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন