বিজ্ঞাপন

আবহাওয়াবিদ এ কে এম নাজমুল হক আজ বৃহস্পতিবার প্রথম আলোকে বলেন, ‘বরিশাল, খুলনা ও চট্টগ্রামে আগামীকাল থেকে বৃষ্টি কিছুটা বাড়তে পারে। এদিকে লঘুচাপের প্রভাবে রোববার থেকে বৃষ্টি বাড়বে। খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও ঢাকা বিভাগে বৃষ্টিপাতের পরিমাণ বাড়বে।’

আজ সন্ধ্যা ছয়টা থেকে শুক্রবার সন্ধ্যা ছয়টা পর্যন্ত সময়ে খুলনা, বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগের অনেক জায়গায়, রংপুর, ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের কিছু জায়গায় ও ঢাকা ও রাজশাহী বিভাগের দু-এক জায়গায় বৃষ্টি হতে পারে বলেও জানিয়েছেন এই আবহাওয়াবিদ। তিনি জানান, আগামী কয়েক ঘণ্টায় শেরপুরে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি হতে পারে। সিলেটের কিছু অঞ্চলে ও খুলনা ও মোংলায় ছিটেফোঁটা ধরনের বৃষ্টি হতে পারে। আজ রাতের তাপমাত্রা সামান্য কমতে পারে বলেও জানান তিনি।

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশের প্রায় অর্ধেক অঞ্চলে সামান্য থেকে হালকা মাঝারি ধরনের বৃষ্টি হয়েছে। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি বৃষ্টি হয়েছে সিলেট ও সাতক্ষীরায় ২৭ মিলিমিটার করে। এ ছাড়া ঢাকায় ২০, কুমিল্লায় ২০, ফেনীতে ৮, টাঙ্গাইলে ৬ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হয়েছে।

এদিকে কুশিয়ারা ছাড়া দেশের নদ-নদীর অবস্থা স্বাভাবিক থাকার আভাস দিয়েছে বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্র। আজ দুপুরে তারা জানিয়েছে, ব্রহ্মপুত্র-যমুনা নদীর পানি কমছে, যা আগামী ৪৮ ঘণ্টা পর্যন্ত অব্যাহত থাকতে পারে। গঙ্গা নদীর পানি বৃদ্ধি পাচ্ছে, পদ্মা নদীর পানি স্থিতিশীল আছে, যা আগামী দুই দিন পর্যন্ত স্থিতিশীল থাকতে পারে। দেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চলের আপার মেঘনা অববাহিকার কুশিয়ারা ব্যতীত অন্য সব নদীর পানি কমছে, যা আগামী দুই দিন অব্যাহত থাকতে পারে।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন