সাতক্ষীরায় মাদক ব্যবসায়ীদের 'গোলাগুলি', নিহত ১

বিজ্ঞাপন
default-image

সাতক্ষীরার সদর উপজেলার কয়ারবিল থেকে লিয়াকত সরদার নামের এক ব্যক্তির গুলিবিদ্ধ মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ সময় সেখান থেকে অস্ত্র, গুলি ও মাদক জব্দ করা হয়। 

পুলিশের দাবি, লিয়াকত সরদার একজন শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী। কয়ারবিল এলাকায় মাদক ব্যবসায়ী দুই পক্ষের সংঘর্ষে লিয়াকত সরদার নিহত হতে পারেন। আজ বৃহস্পতিবার ভোর চারটার দিকে সদর উপজেলার বাঁশদহা ইউনিয়নের কয়ারবিলে এ ঘটনা ঘটে।

লিয়াকত সরদার (৪৫) সদর উপজেলার তলুইগাছা গ্রামের বাসিন্দা। নিহত ব্যক্তির স্ত্রী আকলিমা খাতুন জানান, স্বামী লিয়াকত সরদারের নামে মাদকের মামলা আছে। তা মিটিয়ে দেওয়ার কথা বলে একজন পুলিশ কর্মকর্তার সঙ্গে কথা বলতে লিয়াকতকে বাড়ি থেকে এলাকার একজন ডেকে নিয়ে যান বুধবার সন্ধ্যায়। আজ ভোরে স্থানীয় চৌকিদার সন্তোষ দাস এসে সংবাদ দেন লিয়াকতের মরদেহ কয়ারবিলে পড়ে আছে। তাঁর গলার ডান পাশে গুলির চিহ্ন রয়েছে।

সাতক্ষীরা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আসাদুজ্জামান জানান, সাতক্ষীরা সদর উপজেলার কয়ারবিলে মাদক ব্যবসায়ীদের দুই পক্ষের মধ্যে গোলাগুলি হচ্ছে—এমন গোপন তথ্যের ভিত্তিতে তাঁর নেতৃত্বে একদল পুলিশ সেখানে যায়। তারা সেখানে পৌঁছালে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় একজনকে পড়ে থাকতে দেখে। তাঁর পাশে পড়ে থাকা একটি রিভলবার, দুটি গুলি, একটি হাঁসুয়া, ৫০ বোতল ফেনসিডিল ও ২০০টি ইয়াবা বড়ি জব্দ করা হয়।

ওসি আরও জানান, পুলিশ গুলিবিদ্ধ ব্যক্তিকে সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। পরে মৃত ব্যক্তির পরিচয় জানা যায়। তিনি সদর উপজেলার উত্তর তলুইগাছা গ্রামের লিয়াকত সরদার। তাঁর বিরুদ্ধে সদর থানায় মাদক আইনে নয়টি মামলা রয়েছে। সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করে তাঁর মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে এবং মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন