default-image

স্বতন্ত্র ফিজিওথেরাপি কলেজ ভবন নির্মাণসহ সাত দফা দাবি বাস্তবায়নে মহাখালীর স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছে বাংলাদেশ ফিজিওথেরাপি স্টুডেন্টস ইউনিয়ন (বাপসু)। আজ বুধবার সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত শতাধিক শিক্ষার্থী এতে অংশ নেন।

আজ স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের সামনে অবস্থান কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে পেশাজীবী ফিজিওথেরাপিস্টরা বাপসুর দাবির প্রতি সমর্থন জানান। অবস্থান কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে বাপসুর আহ্বায়ক নুজাইম খান বলেন, দাবি পূরণ না হওয়া পর্যন্ত তাঁরা আন্দোলন কর্মসূচি চালিয়ে যাবেন। তাঁদের দাবির মধ্যে আছে ভবন নির্মাণ সম্পন্ন না হওয়া পর্যন্ত¯স্নাতক কোর্সের শিক্ষার্থীদের জন্য অস্থায়ী ক্যাম্পাসে কলেজের শিক্ষা কার্যক্রম শুরু করতে হবে (এখন পঙ্গু হাসপাতালে শিক্ষা কার্যক্রম চলছে)। সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের শিক্ষানবিশ ফিজিওথেরাপিস্টদের জন্য মাসিক ইন্টার্ন ভাতা দিতে হবে।

বিজ্ঞাপন

সরকারি হাসপাতাল-স্বাস্থ্যসেবা প্রতিষ্ঠানে ফিজিওথেরাপিস্টদের প্রথম শ্রেণির পদ সৃষ্টি ও নিয়োগ দিতে হবে।

ফিজিওথেরাপি ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার ন্যূনতম যোগ্যতা জিপিএ–৯ নির্ধারণ করারও দাবি জানানো হয়।

বাপসুর কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে পেশাজীবী সংগঠন বাংলাদেশ ফিজিক্যাল থেরাপি অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি দলিুলর রহমান বলেন, বাত-ব্যথা, পক্ষাঘাতগ্রস্ত ও শারীরিক প্রতিবন্ধিতার কারণে দেশে দুই কোটি মানুষের ফিজিওথেরাপি দরকার। জনমানুষের সুচিকিৎসায় বাংলাদেশ কলেজ অব ফিজিওথেরাপি বাস্তবায়নে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ জরুরি।

মন্তব্য পড়ুন 0