সিলেটের সারী নদী থেকে বালুসহ খনিজদ্রব্য উত্তোলন বন্ধ করার নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। বাংলাদেশ পরিবেশ আইনবিদ সমিতির (বেলা) দায়ের করা একটি রিট মামলার পরিপ্রেক্ষিতে গত সোমবার বিচারপতি মির্জা হোসেইন হায়দার ও বিচারপতি মুহাম্মদ খুরশীদ আলম সরকারের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ নিষেধাজ্ঞা দিয়ে রুল জারি করেছেন।
রুলে সারী নদীকে কেন প্রতিবেশগত সংকটাপন্ন এলাকা হিসেবে চিহ্নিত করা হবে না, তা জানতে চাওয়া হয়েছে। চার সপ্তাহের মধ্যে বিবাদীদের রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে। একই সঙ্গে স্বচ্ছ প্রবাহ বজায় রাখতে সারী নদীর উৎসমুখের বাগচেরা থেকে পুটিখাল পর্যন্ত জৈন্তাপুর উপজেলার থুমারপুঞ্জি, দক্ষিণ কামরাঙ্গীখেল, জালিয়াখোলা, কালিঞ্জিবাড়ি, উত্তর কামরাঙ্গীখেল এলাকায় বালু, পাথর, কাঁকর, নুড়ি, কয়লাসহ সব ধরনের খনিজদ্রব্য উত্তোলন বন্ধ করতে সিলেটের জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার ও জৈন্তাপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে অন্তর্বর্তীকালীন নির্দেশ দেওয়া হয়।
আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী ইকবাল কবির। আবেদনে বলা হয়, সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলার অন্যতম পর্যটনকেন্দ্র লালাখাল চা-বাগানের পাশ দিয়ে প্রবাহিত সারী স্বচ্ছ পানির নদী। দৈর্ঘ্য প্রায় ২৫ কিলোমিটার। নদীর ৪২৫ একর জায়গা বালুমহাল হিসেবে ইজারা দেওয়ায় অবাধে বালু ও অন্যান্য খনিজদ্রব্য উত্তোলন করছেন সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা। ফলে সারী নদী হারিয়ে যাচ্ছে।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন