বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

পরে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে সংগঠনের উপদেষ্টা লেফটেন্যান্ট জেনারেল (অব.) মাসুদ উদ্দিন চৌধুরী বলেন, ‘প্রবাসীকল্যাণমন্ত্রী বলেছেন মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার সবার জন্য (সব জনশক্তি রপ্তানিকারক প্রতিষ্ঠান) উন্মুক্ত থাকবে। আমরা সিন্ডিকেটের কোনো আভাস দেখছি না। তবে প্রক্রিয়া স্বার্থের বিরুদ্ধে গেলে আমরা প্রতিবাদ করব। আগে থেকে ধারণার ভিত্তিতে কিছু বলা যাবে না।’

মাসুদ উদ্দিন চৌধুরী জনশক্তি রপ্তানিকারক প্রতিষ্ঠান মেসার্স ফাইভ এম ইন্টারন্যাশনালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক। এক-এগারোর সময়ের আলোচিত এই সেনা কর্মকর্তা ফেনী-৩ আসনে জাতীয় পার্টির মনোনয়নে সাংসদ হিসেবেও দায়িত্ব পালন করছেন।

দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার উন্মুক্ত হওয়ায় লিখিত বক্তব্যে জনশক্তি রপ্তানিকারক প্রতিষ্ঠানের মালিকদের পক্ষে সরকারকে ধন্যবাদ জানান শফিকুল আলম ফিরোজ। তিনি বলেন, ‘বৈদেশিক কর্মসংস্থান খাতে যখন নতুন নতুন শ্রমবাজার উন্মুক্ত হচ্ছে, রেমিট্যান্স প্রবাহ যখন বাড়ছে, ঠিক তখনই কিছুসংখ্যক মানুষ চলমান গতিকে ছবির করার জন্য নানা রকম আজব গুজব বা মিথ্যাচার করছে। তাদের এসব গুজব ও মিথ্যাচারের কারণে বিভিন্ন সময়ে শ্রমবাজারে নেতিবাচক প্রভাব পড়েছিল।’

লিখিত বক্তব্যে কাদের বিরুদ্ধে গুজব ছড়ানোর অভিযোগ করা হয়েছে, জানতে চাইলে শফিকুল আলম বলেন, সমঝোতা সই হওয়ার আগেই জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে একটি মানববন্ধন করা হয়েছে। মালয়েশিয়া শ্রমিক পাঠাতে যাতে সিন্ডিকেট না হয়, মানববন্ধন থেকে এমন দাবি জানানো হয়েছিল বলে অভিযোগ করেন তিনি। সমঝোতায় কি আছে, তা দেখার আগেই সিন্ডিকেট বন্ধ করার দাবিকে গুজব বলে আখ্যায়িত করেন তিনি।

গত শনিবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বিমানের টিকিটের মূল্যবৃদ্ধিসহ কয়েকটি বিষয়ে মানববন্ধন করে ‘রিক্রুটিং এজেন্সিজ ঐক্য পরিষদ’ নামের একটি সংগঠন। গুজব ছড়াচ্ছেন কি না, এমন প্রশ্নের জবাবে সংগঠনটির সভাপতি এম টিপু সুলতান প্রথম আলোকে বলেন, ‘আমরা কোনো গুজব ছড়াচ্ছি না। আমরা কোনো সিন্ডিকেট চাই না। বায়রার সাধারণ সদস্যরা কোনো ধরনের সিন্ডিকেট মেনে নেবে না। প্রবাসীকল্যাণমন্ত্রী বলেছেন যে বাংলাদেশের দিক থেকে সিন্ডিকেট হবে না। কিন্তু অতীতে মালয়েশিয়া থেকে যারা সিন্ডিকেট করেছিল, তারা আবারও অপতৎপরতা চালানোর পাঁয়তারা করছে। এদের ইশারায়ই সিন্ডিকেটের বিরোধিতাকারীরা গুজব ছড়াচ্ছেন বলে অভিযোগ করা হচ্ছে।’

দেশের জনশক্তি রপ্তানিকারক প্রতিষ্ঠানগুলো বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব ইন্টারন্যাশনাল রিক্রুটিং এজেন্সির (বায়রা) সদস্যভুক্ত হয়ে কর্মকাণ্ড পরিচালনা করলেও বিভিন্ন মতাদর্শে বিভক্ত তারা। ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে ‘মালয়েশিয়া শ্রমবাজার রক্ষা পরিষদ’ নামের একটি সংগঠনের নামে বুক করা হলেও পরে সম্মিলিত গণতান্ত্রিক জোটের ব্যানারে সংবাদ সম্মেলনটি করা হয়।

বাংলাদেশের ১০টি জনশক্তি রপ্তানিকারক (রিক্রুটিং এজেন্সি) একচেটিয়া বাজার নিয়ন্ত্রণের মাধ্যমে ‘জি টু জি প্লাস’ পদ্ধতিতে মালয়েশিয়ায় কর্মী পাঠাত। তাদের সঙ্গে যুক্ত ছিল মালয়েশিয়া ও বাংলাদেশের প্রভাবশালী ব্যক্তিদের নিয়ে গড়া একটি সংঘবদ্ধ চক্র। এই অভিযোগে ২০১৮ সালের ১ সেপ্টেম্বর থেকে জি টু জি প্লাস পদ্ধতিতে জনশক্তি নেওয়া বন্ধ করে দেয় মালয়েশিয়ান সরকার। এজেন্সি ১০টি হলো ইউনিক ইস্টার্ন, ক্যারিয়ার ওভারসিজ, ক্যাথারসিস ইন্টারন্যাশনাল, এইচএসএমটি হিউম্যান রিসোর্স, সানজারি ইন্টারন্যাশনাল, রাব্বি ইন্টারন্যাশনাল, প্যাসেজ অ্যাসোসিয়েটস, আমিন ট্যুরস অ্যান্ড ট্রাভেলস, প্রান্তিক ট্রাভেলস অ্যান্ড ট্যুরিজম ও আল ইসলাম ওভারসিজ।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন