>
default-image

শহিদুল আলম ছাড়া অ্যাওয়ার্ডের জন্য মনোনীত অন্যরা হলেন ইরানের মো মোসায়েদ, নাইজেরিয়ার দাপো ওলোরুনিওমাই ও রাশিয়ার স্ভেতলানা প্রোকোপিভা

কমিটি টু প্রটেক্ট জার্নালিস্টস (সিপিজে) বাংলাদেশের আলোকচিত্রী শহিদুল আলমকে ইন্টারন্যাশনাল প্রেস ফি্রডম অ্যাওয়ার্ডের জন্য মনোনীত করেছে। তাঁর সঙ্গে আরও তিনজনকে এই অ্যাওয়ার্ডের জন্য মনোনীত করা হয়েছে। এই চারজনই প্রতিবেদন প্রকাশের দায়ে গ্রেপ্তার অথবা মামলার শিকার হয়েছেন।
সিপিজের ওয়েবসাইটে সোমবার চলতি বছরের অ্যাওয়ার্ডের জন্য এই চারজনকে মনোনীত করার কথা 
জানানো হয়। সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতা ও সাংবাদিকদের মানবাধিকার নিয়ে কাজ করা নিউইয়র্কভিত্তিক সংগঠন সিপিজে প্রতিবছর এই অ্যাওয়ার্ড দিয়ে থাকে।

শহিদুল আলম ছাড়া অ্যাওয়ার্ডের জন্য মনোনীত ব্যক্তিরা হলেন ইরানের মো মোসায়েদ, নাইজেরিয়ার দাপো ওলোরুনিওমাই ও রাশিয়ার স্ভেতলানা প্রোকোপিভা। 
সিপিজে এ বছর গোয়েন ‘আইফিল প্রেস ফ্রিডম অ্যাওয়ার্ডের’ জন্য মনোনীত করেছে আইনজীবী আমাল ক্লুনিকে। 
মনোনয়নপ্রাপ্তির প্রতিক্রিয়ায় শহিদুল আলম বলেন, ‘এই স্বীকৃতি আরও যাঁরা আমার মতো নির্যাতন ও নিপীড়নের শিকার হয়েছেন তাঁদের সবার।’ তাঁর মতে তাঁরও আগে জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জের পুরস্কৃত হওয়া প্রয়োজন ছিল। নিজ দেশে যাঁরা বিরুদ্ধমতের কারণে দমন–পীড়নের শিকার হচ্ছেন, তাঁদের অগ্রাধিকার পাওয়া প্রয়োজন। 
সিপিজের নির্বাহী পরিচালক জোয়েল সাইমন বলেন, 'বিশ্বের অন্যান্য জায়গার সাহসী ও প্রতিশ্রুতিবদ্ধ সাংবাদিকদের মতো সিপিজের পুরস্কারপ্রাপ্ত ব্যক্তিরা পেশাগত কাজ করেছেন কোনো ভয়ভীতি ও স্বজনতোষণ ছাড়াই। তাঁদের মনোযোগের কেন্দ্রে ছিল তাঁদের সমাজ, দেশ ও বিশ্ব। 
শহিদুল আলম সম্পর্কে সিপিজে বলেছে, তিনি ফটোসাংবাদিক, ভাষ্যকার এবং বাংলাদেশের মাল্টিমিডিয়া প্রশিক্ষণ প্রতিষ্ঠান পাঠশালা মিডিয়া ইনস্টিটিউট এবং দৃক ফটো লাইব্রেরির প্রতিষ্ঠাতা। ২০১৮ সালের আগস্টে ঢাকায় নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের সময় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে একটি ভিডিও পোস্ট করেছিলেন। তিনি ১০২ দিন জেল খাটেন। ২০১৮ সালের নভেম্বরে মুক্তির পর তিনি জানান, আটক অবস্থায় তিনি মারধরের শিকার হয়েছেন। 

default-image

ইরানের মোহাম্মদ মোসায়েদ ফ্রিল্যান্স সাংবাদিক। অর্থনৈতিক বিষয় নিয়ে লেখেন। দুর্নীতি, আত্মসাৎ, শ্রমসংশ্লিষ্ট বিষয়, অর্থনৈতিক অবরোধ এবং জনগণের প্রতিবাদ নিয়ে লেখেন। সরকারের চাপে তিনি একটি সংস্কারপন্থী পত্রিকা থেকে পদত্যাগ করতে বাধ্য হন। এরপর থেকে নিজের লেখা তিনি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রকাশ করে থাকেন। মোসায়েদ একটি টুইট বার্তার জন্য গত বছরের শেষে দিকে গ্রেপ্তার হন। এ বছরের গোড়ার দিকে তিনি মুক্তি পান। কোভিড–১৯ মোকাবিলায় সরকারের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তোলায় আবারও ফেব্রুয়ারি মাসে তিনি গ্রেপ্তার হন। 
নাইজেরিয়ার দাপো ওলোরুনিওমাই নাইজেরীয় সংবাদপত্র ‘প্রিমিয়াম টাইমস’–এর সহপ্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা। কয়েক দশকের সাংবাদিক জীবনে তিনি নাইজেরিয়ার গণমাধ্যমের স্বাধীনতার পক্ষে জোরালো অবস্থান নিয়েছেন, যদিও এ জন্য বহুবার তাঁকে দেশটির সরকার হয়রানি করেছে। ১৯৯৫ সালে আত্মগোপনে যাওয়ার আগে তিনি দুবার গ্রেপ্তার হন। সবশেষ ২০১৭ সালে মানহানির অভিযোগ তুলে পুলিশ ‘প্রিমিয়াম টাইমস’–এর কার্যালয় তল্লাশি করে এবং একজন সহকর্মীসহ তাঁকে গ্রেপ্তার করে। 
স্ভেতলানা প্রোকোপিয়েভা রেডিও ফ্রি ইউরোপ/রেডিও লিবার্টির (রেডিও স্ভোবোডা নামে পরিচিত) আঞ্চলিক সংবাদদাতা। ২০১৯ সালের শুরুর দিকে কর্তৃপক্ষ তাঁর বাড়িতে তল্লাশি চালায়, তাঁর যন্ত্রপাতি ও ব্যক্তিগত ব্যবহার্য জিনসপত্র জব্দ করে এবং তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করে। একটি উদার রেডিও স্টেশন এখো মোস্কভিতে তিনি আত্মঘাতী বোমা হামলা সম্পর্কে মন্তব্য করায় তাঁর বিরুদ্ধে সন্ত্রাসবাদের পক্ষ নেওয়ার অভিযোগ আনা হয় এবং তাঁর ব্যাংক হিসাব জব্দ করা হয়। এ মাসেই তাঁকে দোষী বলে রায় দিয়েছেন আদালত। তাঁকে পাঁচ লাখ রুবল জরিমানা করা হয়েছে। রাষ্ট্রপক্ষ তাঁর ছয় বছরের কারাদণ্ডাদেশ চেয়েছে।

গোয়েন আইফিল প্রেস ফ্রিডমের জন্য আমাল ক্লুনিকে মনোনীত করার কারণ সংবাদপত্রের স্বাধীনতার জন্য তাঁর অতুলনীয় এবং ধারাবাহিক প্রচেষ্টা। মিয়ানমারে ১৭ মাস জেল খাটা রয়টার্সের দুই সাংবাদিক ওয়া লোন এবং কিয়াও সোয়ে ওওর পক্ষে তিনি আইনি লড়াই চালান।

পুরস্কারের জন্য মনোনয়নপ্রাপ্ত ব্যক্তিদের আনুষ্ঠানিকভাবে সম্মানিত করা হবে আগামী ১৯ নভেম্বর। ওপেন সোসাইটি ফাউন্ডেশনের প্রেসিডেন্ট প্যাট্রিক গ্যাসপার্ড এই অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন। বিখ্যাত ব্রডকাস্ট জার্নালিস্ট লেস্টার হোল্ট এ অনুষ্ঠানের আয়োজক।

কোভিড–১৯ এর কারণে স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তার বিধিনিষেধ রয়েছে। তাই এ বছরের অনুষ্ঠানটি আয়োজিত হবে ভার্চ্যুয়াল মঞ্চ থেকে। এতে থাকবে ভিডিও প্রোফাইল, স্বাধীন সাংবাদিকতা–বিষয়ক প্রতিবেদন, পুরস্কার প্রদান এবং পুরস্কারপ্রাপ্ত ব্যক্তিদের বক্তৃতা। সারা বিশ্বের মানুষ এই অনুষ্ঠান দেখতে পাবেন।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন