সুনামগঞ্জে ধর্ষণ মামলায় ইউপি চেয়ারম্যান কারাগারে

বিজ্ঞাপন
default-image

সুনামগঞ্জের দোয়ারবাজারে ধর্ষণের অভিযোগে করা মামলায় মান্নারগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান আবু হেনাকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। রোববার দুপুরে তাঁকে গ্রেপ্তারের পর আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ওই ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ এনে রোববার থানায় একটি মামলা করেছেন এক নারী (২৬)। এরপর পুলিশ ওই ইউপি চেয়ারম্যানকে গ্রেপ্তার করে।

বাদী তাঁর এজাহারে উল্লেখ করেছেন, তাঁর বাড়ি সদর উপজেলার একটি গ্রামে। স্বামী প্রবাসী। তাঁর ১০ বছরের একটি মেয়ে রয়েছে। তিনি সুনামগঞ্জ পৌর শহরে ওই ইউপি চেয়ারম্যানের এক আত্মীয়ের বাড়িতে মেয়েকে নিয়ে ভাড়া থাকেন। গত ১০ এপ্রিল চেয়ারম্যান তাঁর ঘরে গিয়ে ভয়ভীতি দেখিয়ে তাঁকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করেন। এরপর আরও কয়েকবার ধর্ষণ করার ফলে তিনি অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েন। পরে শহরের একটি বেসরকারি ক্লিনিকে গত ২৭ জুলাই গর্ভপাত করান তিনি। তখন ওই ইউপি চেয়ারম্যানও সেখানে ছিলেন।

গ্রেপ্তারের পর ইউপি চেয়ারম্যান আবু হেনা দাবি করেছেন, তাঁর বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ সত্য নয়। তাঁকে ষড়যন্ত্রমূলকভাবে ফাঁসানো হয়েছে।

সুনামগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সহিদুর রহমান বলেন, মামলা হওয়ার পর ওই ইউপি চেয়ারম্যানকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে আদালতে হাজির করা হলে আদালত তাঁকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন