আজ মঙ্গলবার আর্টিকেল নাইনটিন-এর এক বিবৃতিতে এসব কথা বলা হয়েছে। সংস্থার দক্ষিণ এশিয়ার আঞ্চলিক পরিচালক ফারুখ ফয়সল বলেন, ‘যেকোনো বিষয় নিয়ে মতপ্রকাশ ও প্রতিবাদ করার অধিকার একজন নাগরিকের সাংবিধানিক অধিকার এবং তা সরকারের জবাবদিহিকে নিশ্চিত করে। সৈয়দা রত্না ও তাঁর কিশোর ছেলেকে পুলিশ কর্তৃক বেআইনি আটক ও হয়রানি বাংলাদেশে মতপ্রকাশের স্বাধীনতা এবং নাগরিক পরিসর সংকোচনের উদ্বেগজনক চিত্র ফুটিয়ে তোলে।’

ফারুখ ফয়সল আরও বলেন, এই ঘটনায় পুলিশের বেআইনিভাবে তুলে নিয়ে যাওয়ার প্রবণতা আবার দেখা গেছে। ভিন্নমত, প্রতিবাদ ও আন্দোলন দমনে সাম্প্রতিককালে বাংলাদেশে পুলিশের ক্রমাগত অনেক বেশি কর্তৃত্বপরায়ণ প্রবণতা, বেআইনি আটক, বলপ্রয়োগ, মামলা, হুমকি, হয়রানি করার প্রবণতা বেড়ে চলেছে। শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদ দমনে বেআইনি আটক, মুচলেকা নেওয়া, হয়রানি মৌলিক মানবাধিকারের প্রত্যক্ষ লঙ্ঘন। নাগরিক ও রাজনৈতিক অধিকার সম্পর্কিত আন্তর্জাতিক চুক্তির (আইসিসিপিআর) অধীনে মতপ্রকাশ ও প্রতিবাদ করার অধিকার রক্ষায় বাংলাদেশ সরকারের যে বাধ্যবাধকতা রয়েছে, তার সঙ্গেও এটা সাংঘর্ষিক।

ঢাকার পান্থপথের স্কয়ার হাসপাতালের উল্টো দিকের গলির মুখে খোলা জায়গাটি তেঁতুলতলা মাঠ হিসেবে পরিচিত। সেখানে স্থানীয় শিশুরা খেলাধুলা করে, ঈদের নামাজ, জানাজাসহ স্থানীয় লোকজনের নানা সামাজিক আয়োজন হয়ে থাকে। ওই জমিতে কলাবাগান থানার স্থায়ী ভবন নির্মাণের প্রতিবাদ করায় গত রোববার স্থানীয় বাসিন্দা সৈয়দা রত্না ও তাঁর ছেলেকে ধরে নিয়ে প্রায় ১৩ ঘণ্টা থানায় আটকে রাখা হয়।

মানবাধিকারকর্মীসহ বিভিন্ন সংগঠন ও স্থানীয়দের প্রতিবাদের মুখে ওই দিন মধ্যরাতে মা–ছেলেকে ছাড়া হয়।

আর্টিকেল নাইনটিন যুক্তরাজ্যভিত্তিক একটি আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা। এটা বিশ্বের বিভিন্ন দেশে কাজ করছে। ১৯৮৭ সালে যুক্তরাজ্যে প্রতিষ্ঠিত সংস্থাটি মতপ্রকাশের স্বাধীনতা ও মুক্তচিন্তা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে কাজ করে। সংস্থাটি ২০০৮ সাল থেকে বাংলাদেশে কাজ করে আসছে।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন