সংঘর্ষের ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী ও বিবদমান দুই পক্ষের লোকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের ছাত্র আকতারুল করিম ওরফে রুবেল ও সোহরাওয়ার্দী উদ্যান এলাকায় মাদকের নেটওয়ার্কের প্রধান পারুলী আক্তারের মধ্যে বাগ্‌বিতণ্ডা থেকে সংঘর্ষের সূত্রপাত। পরে তাঁদের সহযোগীরাও সংঘর্ষে যোগ দেন।

প্রথমে আকতারুল পারুলীকে লাঠিসোঁটা ও ইটপাটকেল দিয়ে আঘাত করেন। এর জেরে পারুলীর সহযোগীরা ইটপাটকেল নিয়ে আকতারুল ও তাঁর সহযোগীদের দিকে তেড়ে যান।

পারুলীর সহযোগী দুই ছিন্নমূল তরুণী প্রথম আলোকে বলেন, আকতারুল করিম সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ঘুরতে আসা এক ব্যক্তিকে মাদকসেবী আখ্যা দিয়ে জেরা করছিলেন। একপর্যায়ে ওই ব্যক্তির পকেটে গাঁজা আছে, এমন অভিযোগ তুলে তাঁকে মারধর শুরু করেন আকতারুল। ঘটনাটি দেখতে পেয়ে পারুলী তাঁদের কাছে যান।

আকতারুলকে পারুলী বলেন, “আপনারা ছাত্ররা যখন যা চান, তা কি আমরা দিই না? লোকটাকে মারছেন কেন?” এরপর আকতারুলের সঙ্গে পারুলীর কথা-কাটাকাটি শুরু হয়। পরে তা সংঘর্ষে রূপ নেয়।

জানতে চাইলে পারুলী দাবি করেন, ‘বিনা কারণে’ ইটের আঘাতে তাঁর মাথা ফাটিয়েছেন আকতারুল। অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে আকতারুল প্রথম আলোকে বলেন, ‘পারুলী আমার মাথা ফাটিয়ে দিয়েছে।’ বিস্তারিত জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমি এখন কথা বলতে পারছি না।’

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন