default-image

রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসকদের একটি অংশ পরিচালকের কার্যালয় ঘেরাও করেন। নিরাপদ থাকার জায়গার দাবিতে আজ শনিবার দুপুরে পরিচালককে ঘেরাওয়ের এই ঘটনা ঘটে।

প্রায় এক ঘন্টা ঘেরাও করে রাখার পর কোভিড–১৯ চিকিৎসার দায়িত্বে থাকা চিকিৎসকেরা তাদের সমস্যা সমাধানে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে ৪৮ ঘন্টা সময় বেঁধে দেন।

বিজ্ঞাপন

কোভিড–১৯ চিকিৎসার দায়িত্বে থাকা চিকিৎসক, নার্স ও অন্যান্য স্বাস্থ্যকর্মীরা গত কয়েকমাস ধরে হোটেলে থেকে হাসপাতালে যাওয়া–আসা করতেন। কোয়ারেন্টিন বিধি মেনে তাদের কাজ করতে হত। সরকার সম্প্রতি তাদের হোটেলে থাকার ব্যবস্থা বাতিল করেছে। কিন্তু অনেকেই সুবিধামত থাকার জায়গা পাচ্ছেন না।

নিরাপদ থাকার জায়গার দাবিতে শনিবার হাসপাতালের পরিচালক অধ্যাপক উত্তম কুমার বড়ুয়ার কক্ষসহ বেশ কয়েকজন কর্মকর্তার কক্ষ ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখিয়েছেন চিকিৎসকেরা। উত্তম কুমার বড়ুয়া প্রথম আলোকে বলেন, ‘সরকারের পরিপত্র অনুযায়ী চিকিৎসকদের হোটেলে থেকে দায়িত্ব পালন করার সুযোগ নেই। আমরা চিকিৎসকদের হোটেল ছেড়ে দিতে বলেছি। এজন্য চিকিৎসকেরা অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন।’

বিজ্ঞাপন

উত্তম কুমার বড়ুয়া ও চিকিৎসকদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, চিকিৎসকসহ অন্যান্য স্বাস্থ্যকর্মীরা হোটেলে থাকার সুবিধা পাবেন না। তার পরিবর্তে ঢাকায় দায়িত্ব পালনকারী চিকিৎসকরা দৈনিক দুই হাজার টাকা, নার্সরা ১ হাজার ২০০ টাকা এবং অন্যান্য স্বাস্থ্যকর্মীরা ৮০০ টাকা করে ভাতা পাবেন। সরকার কয়েকটি থাকার জায়গা নির্দিষ্ট করেছে। কিন্তু চিকিৎসকেরা সেই জায়গায় থাকতে চান না।

উত্তম কুমার বলেন, ‘বিষয়টি আমি স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালককে অবহিত করেছি। অন্যদিকে চিকিৎসকদের রোববারে সুনির্দিষ্ট প্রস্তাব আনতে বলেছি।’

চিকিৎসকদের এই বিক্ষোভ ও ঘেরাওয়ের কারণে হাসপাতালে চিকিৎসা সেবার কোনো ব্যাঘাত ঘটেনি বলে দাবি করেন উত্তম কুমার বড়ুয়া।

মন্তব্য পড়ুন 0