default-image

স্বামীর থেকে টাকা হাতিয়ে নিতে লোক ভাড়া করে ছেলেকে অপহরণ করিয়েছেন সৎমা। গাজীপুর সিটি করপোরেশনের বোর্ড বাজার এলাকায় গতকাল সোমবার এ ঘটনা ঘটে। অপহরণের এক দিন পর আজ বিকেলে শিশুটিকে উদ্ধার ও সৎমাকে গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাব-১।

গ্রেপ্তার হওয়া নারীর নাম ছবি আক্তার (২৫)। তিনি উত্তর খাইলকৈর এলাকার বাসিন্দা জব্দুল আলীর দ্বিতীয় স্ত্রী।

র‍্যাব ও অপহৃত শিশুর পরিবার সূত্রে জানা গেছে, জব্দুল আলীর দ্বিতীয় স্ত্রী ছবি আক্তার বিয়ের পর থেকেই প্রথম স্ত্রীর ছেলে মো. রাব্বি হাসানকে (১১) মারধর করতেন। স্বামীর কাছ থেকে মোটা অঙ্কের টাকা হাতিয়ে নিতে গতকাল সকাল নয়টার দিকে পূর্বপরিকল্পিতভাবে রাব্বিকে বাড়ি থেকে বেশ দূরের এক দোকানে পাউরুটি কিনতে পাঠান ছবি। দোকান থেকে ফেরার পথে ওত পেতে থাকা ৩-৪ জন অপহরণকারী রাব্বিকে একটি মাইক্রোবাসে তুলে নিয়ে যান। দুপুর হয়ে গেলেও রাব্বি ফিরে না আসায় খুঁজতে শুরু করেন বাড়ির লোকজন। সকাল সাড়ে ১০টার দিকে অপহরণকারীরা ফোন করে ৩ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করেন। মুক্তিপণ না পেলে রাব্বিকে হত্যা করার হুমকিও দেন তাঁরা।

অপহরণকারীদের ফোন পাওয়ার পর সোমবার বিকেলেই তারাগাছা থানায় ও পোড়াবাড়ী র‌্যাব-১ ক্যাম্পে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন রাব্বির পরিবারের সদস্যরা। পরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মঙ্গলবার বিকেলে পোড়াবাড়ী বাজারের জোলারপাড় রোডে অভিযান চালান র‍্যাব-১-এর সদস্যরা। র‍্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে রাব্বিকে নিয়ে মাইক্রোবাসে করে ময়মনসিংহের দিকে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন অপহরণকারীরা। একপর্যায়ে অপহরণকারীরা রাব্বিকে একটি নির্জন স্থানে ফেলে পালিয়ে গেলে শিশুটিকে উদ্ধার করে র‍্যাব। পরে মোবাইল ফোনের কল লিস্টের সূত্র ধরে ছবি আক্তারকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করলে তিনি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন। পরে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়।

র‌্যাব-১ পোড়াবাড়ী ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার লে. কমান্ডার আবদুল্লাহ আল মামুন প্রথম আলোকে জানান, স্বামীর কাছ থেকে তিন লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার উদ্দেশ্যে লোক ভাড়া করে ছেলেকে অপহরণ করিয়েছেন সৎমা ছবি আক্তার।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন