default-image

বিশ্বজুড়ে স্বাস্থ্যকেন্দ্রগুলোয় পরিষ্কার পানি, শৌচাগার, হাত ধোয়ার মতো অতিপ্রয়োজনীয় সেবা বেশ অপ্রতুল। বিশেষত গরিব দেশগুলোয় এসব সেবার সুযোগ আরও সীমিত। স্বাস্থ্যকেন্দ্রে এসব সেবা নিশ্চিত করতে ১২০ কোটি মার্কিন ডলারের তহবিল প্রয়োজন। এই তহবিল গড়তে বিশ্বনেতাদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে ওয়াটারএইড।

আগামীকাল বুধবার বিশ্ব স্বাস্থ্য দিবস। এই দিবস সামনে রেখে আজ মঙ্গলবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ আহ্বান জানিয়েছে ওয়াটারএইড। সংস্থাটি বলছে, করোনাসহ অন্যান্য সংক্রামক রোগের বিস্তার ঠেকানোর অন্যতম উপায় হাত পরিষ্কার রাখা। তবে বিশ্বজুড়ে স্বাস্থ্যকেন্দ্রগুলোতেই আমরা এই সুবিধা নিশ্চিত করতে পারিনি।

সংস্থাটির গবেষণায় দেখা গেছে, বিশ্বজুড়ে প্রতি চারটি স্বাস্থ্যকেন্দ্রের একটিতে নেই পরিষ্কার পানি। প্রতি তিনটি কেন্দ্রের একটিতে হাত ধোয়ার ব্যবস্থা অনুপস্থিত। দশটি কেন্দ্রের একটিতে নেই কোনো শৌচাগার। নিম্ন আয়ের দেশগুলোয় পরিস্থিতি আরও খারাপ। এসব দেশের অর্ধেক হাসপাতাল, ক্লিনিক, স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নেই পরিষ্কার পানি সরবরাহের ব্যবস্থা।

বিজ্ঞাপন

বিশ্বজুড়ে স্বাস্থ্যকেন্দ্রগুলোয় পরিষ্কার পানি, শৌচাগার, হাত ধোয়ার ব্যবস্থা করতে জরুরি ভিত্তিতে ১২০ কোটি ডলারের তহবিল গড়া প্রয়োজন বলে জানিয়েছে ওয়াটারএইড। সম্প্রতি রোমে অনুষ্ঠিত বৈশ্বিক মহামারি পরবর্তী পুনর্গঠন শীর্ষক এক আলোচনায় জি-২০ দেশগুলোর অর্থমন্ত্রীরা এই বিষয়টির গুরুত্ব নিয়ে আলোচনা করেছেন। এই বিনিয়োগের মাধ্যমে বিশ্বজুড়ে সংক্রামক রোগের কবল থেকে লাখ লাখ মানুষের জীবন রক্ষা করা সম্ভব হবে বলে মনে করছে সংস্থাটি।

ওয়াটারএইড বাংলাদেশের দেশীয় পরিচালক হাসিন জাহান বলেন, ‘স্বাস্থ্য খাতে বৈষম্য দূর এবং উন্নত ও স্বাস্থ্যকর বিশ্ব গড়তে জনগণকে একত্র করার পদক্ষেপ নিতে আহ্বান জানাচ্ছি। ভবিষ্যতের কথা ভেবে স্বাস্থ্যকেন্দ্রগুলোয় ন্যূনতম সেবা নিশ্চিত করতে আরও বিনিয়োগ করতে হবে।’

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন