default-image

প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন বলেছেন, ‘স্বাস্থ্যবিধি সবাই মানবেন। স্বাস্থ্যবিধি না মানার কারণে এই করোনার ব্যাপক বৃদ্ধি। আজকেও পেপারে ছবি আসছে, কেউ মাস্ক পরা নেই। এখন যেটি আসছে (করোনার ধরন), তা ছড়াচ্ছে বেশি। খুব তাড়াতাড়ি ছড়িয়ে যাচ্ছে। সুতরাং সবাই স্বাস্থ্যবিধি মানবেন।’

আদালতের বিচারিক কার্যক্রম শুরুর আগে আজ বুধবার সকালে প্রধান বিচারপতি আইনজীবীদের উদ্দেশে এসব কথা বলেন। এরপর প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন তিন সদস্যের ভার্চ্যুয়াল আপিল বিভাগে বিচারিক কার্যক্রম শুরু হয়। সকাল সাড়ে ৯টার দিকে ভার্চ্যুয়ালি যুক্ত হন বিচারপতিরা।

শুরুতে প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন আইনজীবীদের উদ্দেশে বলেন, ‘আশা করি, সবাই সুস্থ ছিলেন। আমাদের সভাপতি (সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি আবদুল মতিন খসরু) অসুস্থ। উনি যাতে তাড়াতাড়ি আরোগ্য লাভ করেন, সে জন্য সবাই প্রার্থনা করি।’

সাপ্তাহিক ছুটিসহ প্রায় দুই সপ্তাহ অবকাশ শেষে আজ সুপ্রিম কোর্ট খুলেছে। বিচারিক কার্যক্রম শুরুর আগে ভার্চ্যুয়াল কোর্টে প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন আরও বলেন, ‘আমাদের কোর্টে তো অগণিত লোক আসে। সুতরাং যাঁরা আইনজীবী আছেন, উনারা কিন্তু খুব সাবধান থাকবেন। আবার অনেকেই যাচ্ছেন ফিজিক্যাল (শারীরিক উপস্থিতি) কোর্টে। আর কারও সামনে লোক থাকলে অবশ্যই মাস্ক পরবেন। সামনে লোক না থাকলে মাস্ক পরার দরকার নেই। আমাদের এখানে সামনে লোক থাকে। ফাইল দিতে হয়। ফাইল একটার পর একটা আসে। এ জন্য বাধ্য হয়ে মাস্ক পরতে হয়।’

এ সময় আপিল বিভাগের সংশ্লিষ্ট বেঞ্চ কর্মকর্তার উদ্দেশে প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘আপনিও কোট পরবেন না। কোট সবচেয়ে ঝুঁকি, সাংঘাতিক ঝুঁকি। বাসায় গিয়ে শার্ট ধোয়া যায়। কোট ধোয়া যায় না।’

বিজ্ঞাপন

কালো কোট-গাউন পরার প্রয়োজন নেই
মামলা শুনানির সময় বিচারপতি, বিচারক ও আইনজীবীদের পরিধেয় পোশাক বিষয়ে গতকাল মঙ্গলবার পৃথক বিজ্ঞপ্তি দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন।

প্রধান বিচারপতির আদেশক্রমে সুপ্রিম কোর্টের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার জেনারেল স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, প্রধান বিচারপতির সঙ্গে সুপ্রিম কোর্টের জ্যেষ্ঠ বিচারপতিদের আলোচনাক্রমে এই সিদ্ধান্ত হয় যে পরিবর্তিত পরিস্থিতে সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি ও আইনজীবীরা ক্ষেত্রমতো টার্নড আপ সাদা কলার ও সাদা ব্যান্ডসহ সাদা শার্ট বা সাদা শাড়ি/সালোয়ার কামিজ পরিধান করবেন। এ ক্ষেত্রে কালো কোট ও গাউন পরিধান করার প্রয়োজনীয়তা নেই।

কালো কোট ও গাউন পরিধান করার প্রয়োজনীয়তা নেই উল্লেখ করে অপর বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, পরিবর্তিত পরিস্থিতে দেশের সব অধস্তন দেওয়ানি ও ফৌজদারি আদালত/ট্রাইব্যুনালের বিচারক ও আইনজীবীরা ক্ষেত্রমতো সাদা শার্ট বা সাদা শাড়ি/সালোয়ার কামিজ ও সাদা নেক ব্যান্ড/কালো টাই পরিধান করবেন।

এসব নির্দেশনা অবিলম্বে কার্যকর হবে। পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত তা বলবৎ থাকবে বলে সুপ্রিম কোর্টের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার জেনারেল মো. বদরুল আলম ভূঞা স্বাক্ষরিত পৃথক বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন