বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

রেজিস্ট্রার জেনারেল মো. আলী আকবর স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, হাইকোর্ট বিভাগের যেসব বেঞ্চ শারীরিক উপস্থিতিতে আদালতের কার্যক্রম পরিচালনা করতে ইচ্ছুক, সেসব বেঞ্চ কর্তৃক নির্ধারিত তারিখ হতে স্বাস্থ্যবিধি কঠোরভাবে অনুসরণ করে প্রয়োজনীয় সুরক্ষামূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করে শারীরিক উপস্থিতিতে আদালতের কার্যক্রম পরিচালনা করতে পারবেন।

এর আগে ৮ আগস্ট এক বিজ্ঞপ্তিতে সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন জানায়, ২০২০ সালের আদালত কর্তৃক তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার আইন ও জারি করা প্র্যাকটিস ডাইরেকশন অনুসরণ করে ভার্চুয়াল পদ্ধতির মাধ্যমে ১১ আগস্ট থেকে সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগের সব বেঞ্চে ১১ আগস্ট থেকে বিচারিক কার্যক্রম পরিচালিত হবে।

এরপর ১১ আগস্ট থেকে ভার্চুয়াল উপস্থিতিতে বিচারকাজ পরিচালনায় হাইকোর্টের পৃথক ৫৩টি বেঞ্চ গঠন করে দেন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন। ১১ আগস্ট থেকে ভার্চুয়াল উপস্থিতিতে বেঞ্চগুলোর কার্যক্রম চলে আসছিল। এ অবস্থায় রোববার নতুন ওই নির্দেশনা আসল।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন