রংপুরের মিঠাপুকুরে যাত্রীবাহী বাসে পেট্রলবোমা হামলায় জড়িত থাকার বিষয়ে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন গ্রেপ্তার হওয়া উপজেলা ছাত্রশিবিরের সাবেক সভাপতি হাফিজুর রহমান (৩০)।
গত ১৩ জানুয়ারি রাতে মিঠাপুকুরে চলন্ত বাসে ওই হামলায় ঘটনাস্থলেই শিশুসহ চারজন, পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় দুজন মারা যান।
হাফিজুর রহমানের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেওয়ার কথা গতকাল সোমবার মিঠাপুকুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হুমায়ুন কবীর নিশ্চিত করেছেন।
পুলিশের ভাষ্য, গ্রেপ্তার হওয়া হাফিজুর রহমান সংগ্রাম পত্রিকার উপজেলা সংবাদদাতা। মিঠাপুকুরে চলন্ত বাসে পেট্রলবোমা ছুড়ে মানুষ হত্যার ঘটনায় করা মামলার তিনি একজন আসামি। গত শনিবার রাতে উপজেলার গড়েরমাথা এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয় তাঁকে। গত রোববার আদালতে ১৬৪ ধারায় দেওয়া জবানবন্দিতে তিনি হামলায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছেন।
হামলার ঘটনায় জড়িত অন্যদের নাম জনানবন্দিতে হাফিজুর বললেও পুলিশ তা জানাতে অস্বীকার করে।
এদিকে ওই ঘটনায় গতকাল পর্যন্ত জামায়াত-শিবিরের ৪১ জন নেতা-কর্মীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গ্রেপ্তার হওয়া নেতা-কর্মীদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য কয়েকজন হলেন মিঠাপুকুর উপজেলা জামায়াতের দপ্তর সম্পাদক শাহ হাফিজুর রহমান, উপজেলা ছাত্রশিবিরের সভাপতি ইউনুস আলী ও সাবেক সভাপতি আবদুল মোকছেদ বাহারুল।
হামলার ঘটনায় মিঠাপুকুর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আবদুর রাজ্জাক বাদী হয়ে ৮০ জনের নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাতনামা আরও ৫০ জনকে আসামি করে ঘটনার পরদিন মিঠাপুকুর থানায় মামলা করেন।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন