বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আরিফুর রহমান আরও বলেন, এক নারীর জমি বিক্রি করায় কাউন্সিলর নান্নু শেখ তাঁর কাছে পাঁচ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করেন। এ ঘটনার তিনি (আরিফুর) প্রতিবাদ করেন ও চাঁদা দাবির বিরুদ্ধে অবস্থান নেন। এতে নান্নু শেখ ক্ষুব্ধ হয়ে তাঁর (আরিফুর) বিরুদ্ধে মিথ্যা ও বানোয়াট অভিযোগ তুলে ঘোলা পানিতে মাছ শিকারের চেষ্টা করছেন।
সংবাদ সম্মেলনে কয়েকজন ভুক্তভোগী উপস্থিত ছিলেন। ভুক্তভোগীদের মধ্যে আনোয়ার হোসেন ও সৈয়দ রাকিবুল রহমান জানিয়েছেন, তাঁরাও নান্নু শেখের নির্যাতনের শিকার হয়েছেন।

সংবাদ সম্মেলন শেষে আরিফুর রহমান ও তাঁর কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে শহরের কানাইখালীতে নাটোর প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন করেন। সেখানে প্রায় আধা ঘণ্টা অবস্থান করে তাঁরা বক্তব্য দেন। বক্তারা প্যানেল মেয়র আরিফুর রহমানের বিরুদ্ধে করা অভিযোগ প্রত্যাহারের দাবি জানান।

প্যানেল মেয়র আরিফুর রহমানের সব অভিযোগ অস্বীকার করে কাউন্সিলর নান্নু শেখ বলেন, ‘ভূতের মুখে রাম নাম। প্যানেল মেয়রের বিরুদ্ধে থানায় জমা দেওয়া অভিযোগ সম্পূর্ণ সত্য। পৌরসভার অন্য কাউন্সিলররা এ ঘটনার সাক্ষী। তাই অভিযোগ প্রত্যাহারের প্রশ্নই ওঠে না।’

কাউন্সিলর নান্নু শেখ বুধবার বিকেলে সদর থানায় প্যানেল মেয়র আরিফুর রহমানের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ জমা দিয়েছেন। নাটোর থানা-পুলিশ অভিযোগটি তদন্ত করছে।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন