রাজশাহী আইনজীবী সমিতির তলবি সাধারণ সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী গতকাল মঙ্গলবার হরতালের দিনেও আদালতে কার্যক্রম চলেছে। কয়েকটি শর্ত সাপেক্ষে গত রোববার সমিতি এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে।
সমিতি সূত্রে জানা গেছে, বিচারপ্রার্থী জনগণের সুবিধার্থে হরতালের মধ্যেও আইনজীবীরা মামলায় অংশগ্রহণ করবেন। সে ক্ষেত্রে কয়েকটি শর্ত নির্ধারণ করা হয়েছে।
শর্তগুলো হলো—হরতালের দিনে জামিন পাওয়া আসামিদের অনুপস্থিতিতে কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করা না হলেও তাঁদের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা বা অন্য কোনো আদেশ দেওয়া যাবে না বা বাদীর মামলা খারিজ করা যাবে না। হরতালের দিনে উভয় পক্ষের শুনানি ছাড়া আসামির বিরুদ্ধে রিমান্ড শুনানি করা যাবে না। বিচারাধীন মামলায় আসামির অনুপস্থিতিতে সাক্ষ্য গ্রহণ করা যাবে না। আসামিপক্ষের পদক্ষেপ না থাকলেও গ্রেপ্তারি পরোয়ানা দেওয়া যাবে না এবং সিভিল মোকদ্দমায় যেকোনো পর্যায়ে কোনো পক্ষ বা উভয় পক্ষ অনুপস্থিত থাকলে বা আইনজীবী কোনো পদক্ষেপ না নিলেও মামলার কোনো ক্ষতিসাধন বা একতরফা শুনানি করা যাবে না।
গতকাল দুপুরে আদালত চত্বরে গিয়ে বিচারপ্রার্থী মানুষের ব্যাপক উপস্থিতি লক্ষ করা যায়। আইনজীবীরা জানান, হরতালের দিনে শুধু মামলার তারিখ পরিবর্তন করে দেওয়া হয়েছে। বার সমিতির সিদ্ধান্ত নেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে আইনজীবীরা তাঁদের মক্কেলদের সিদ্ধান্ত জানিয়ে দিয়েছেন। ফলে গতকাল প্রথম দিনেই বিচারপ্রার্থী মানুষের ব্যাপক উপস্থিতি দেখা যায়।
সমিতির সভাপতি মোজাম্মেল হক জানান, আদালতে মক্কেলের অতিরিক্ত উপস্থিতি ছিল। দীর্ঘদিন থেকে যেসব আসামি হাজতে রয়েছেন, তাঁদের স্বজনেরা খবর পেয়েই চলে এসেছেন। তাঁদের কারণেই উপস্থিতি বেড়েছে।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন