হাওর দর্শনে গিয়ে নিখোঁজ শিক্ষার্থীর লাশ উদ্ধার

বিজ্ঞাপন
default-image

কিশোরগঞ্জের করিমগঞ্জে হাওরে গোসল করতে নেমে নিখোঁজ হওয়ার তিন দিন পর শিক্ষার্থী ইকরামুল ইসলামের (২০) লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। আজ সোমবার সকালে হাওরের হাসানপুর সেতু এলাকায় লাশ ভেসে ওঠে।

ইকরামুল জেলার কটিয়াদী উপজেলার জালালপুর ইউনিয়নের দক্ষিণ চরপুখিয়া গ্রামের বাসিন্দা। তিনি স্থানীয় কলেজে দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন। একই ঘটনায় ইকরামুলের চাচাতো ভাই হাদিউল ইসলামও (৩২) মারা গেছেন। ঘটনার দিন শনিবারই তাঁর লাশ পাওয়া যায়। হাদিউল টাঙ্গাইলের সখীপুর আবাসিক মহিলা কলেজের উদ্ভিদ বিজ্ঞানবিভাগের শিক্ষক ছিলেন।

পুলিশ ও পরিবার সূত্রে জানা যায়, ঈদ–পরবর্তী আনন্দভ্রমণ হিসেবে কলেজশিক্ষক হাদিউল তাঁর ঘনিষ্ঠ ৪০ থেকে ৪৫ জনকে নিয়ে শনিবার হাওর দর্শনে যান। তাঁরা করিমগঞ্জ চামড়া বন্দর থেকে নৌকায় করে ভ্রমণে বের হন। বিকেল পাঁচটার দিকে হাসানপুর সেতু এলাকায় তাঁদের মধ্যে বেশ কয়েকজন গোসল করতে নামেন। এ সময় স্রোতের তোড়ে হাদিউল ও ইকরামুল পানিতে তলিয়ে যান। পরে স্থানীয় ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা এসে উদ্ধারকাজে নামেন। শনিবার সন্ধ্যার দিকে হাদিউলের লাশ উদ্ধার হয়। তবে ইকরামুল নিখোঁজ ছিলেন। দুই দিনেও কোনো খোঁজন না মেলায় গতকাল রোববার বিকেলে উদ্ধার অভিযান সমাপ্ত ঘোষণা করা হয়। এই অবস্থায় আজ সকাল আটটার দিকে হাসানপুর সেতু এলাকার আধা কিলোমিটার দূরে ইকরামুলের লাশ ভেসে ওঠে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন করিমগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোমিনুল ইসলাম। তিনি বলেন, এলাকাবাসীর মাধ্যমে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। তারা লাশটি উদ্ধার করে এনেছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন