default-image

চট্টগ্রামের হাটহাজারীতে সহিংসতার মামলায় হেফাজতে ইসলামের সদ্য বিলুপ্ত কেন্দ্রীয় কমিটির সহকারী মহাসচিব জাফর আহমেদসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। বাকি দুজন হলেন কেন্দ্রীয় যুবদলের সদস্য আকরাম উদ্দিন ও হেফাজত কর্মী মো. সালাউদ্দিন।

আজ শনিবার বিকেলে তাঁদের গ্রেপ্তার করা হয় বলে হাটাহাজারী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. রফিকুল ইসলাম জানিয়েছেন।

এর আগে গত বুধবার রাতে চট্টগ্রাম নগরীর লালখান বাজার মাদ্রাসা থেকে হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় কমিটির শিক্ষা ও সংস্কৃতিবিষয়ক সম্পাদক মুফতি হারুন ইজাহারকে গ্রেপ্তার করে র‍্যাব। পরে তাঁকে হাটহাজারী থানার তিন মামলায় সাত দিন করে রিমান্ডের আবেদন করে পুলিশ। সোমবার তাঁর রিমান্ড শুনানির জন্য দিন রাখা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরবিরোধী কর্মসূচি ঘিরে গত ২৬ মার্চ জুমার নামাজের পর ঢাকার বায়তুল মোকাররম মসজিদ এলাকায় সংঘর্ষ হয়। এর জের ধরে চট্টগ্রামের হাটহাজারী ও পটিয়ায় সহিংসতার ঘটনা ঘটে। সে সময় হাটহাজারীতে পুলিশের সঙ্গে হেফাজত কর্মীদের সংঘর্ষে চারজন নিহত হন। পটিয়া ও হাটহাজারী থানায় হামলা, ভূমি কার্যালয়ে ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগে ঘটনায় সন্ত্রাসীবিরোধী আইনে পৃথক সাতটি মামলা হয়। এসব মামলায় ৪ হাজার ৩০০ জনকে আসামি করা হয়।

পরে গত ২২ এপ্রিল হেফাজতের নেতা-কর্মীদের আসামি করে পৃথক তিনটি মামলা করে হাটহাজারী থানা-পুলিশ। এর মধ্যে দুই মামলায় হেফাজতের বিলুপ্ত কমিটির আমির জুনায়েদ বাবুনগরীকে আসামি করা হয়। তিন মামলায় আসামি করা হয় তিন হাজার জনকে। এর মধ্যে ১৪৮ জনের নাম উল্লেখ করা হয়।
হাটহাজারী থানার ওসি রফিকুল ইসলাম প্রথম আলোকে বলেন, নাশকতার ভিডিও ফুটেজ দেখে ঘটনার সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিদের শনাক্ত করে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন