বিজ্ঞাপন

নিহত জোবায়ের হোসেন সোনাদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) স্থগিত হওয়া নির্বাচনে ৫ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য পদপ্রার্থী ছিলেন। জোবায়ের হোসেনের ছেলে মো. জীবন অভিযোগ করেন, সোনাদিয়া ইউপির চেয়ারম্যান নুরুল ইসলামের শ্যালক আবদুল বাতেন ও তাঁর সহযোগী সুজন, ফকির, জামাল, শাহেদের নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী চরচেঙ্গা বাজারের একটি দোকানে তাঁর বাবাকে কুপিয়ে হত্যা করে। পরে স্থানীয় লোকজন জোবায়েরকে উদ্ধার করে হাতিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

সোনাদিয়া ইউপির চেয়ারম্যান মো. নুরুল ইসলাম দাবি করেন, জেলেদের চাল বিতরণ নিয়ে বাগ্‌বিতণ্ডার জের ধরে এ ঘটনা ঘটেছে। নিহত জোবায়েরের নেতৃত্বে জেলেদের চাল ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করলে সংঘর্ষে তাঁর মৃত্যু হয়।

হাতিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবুল খায়ের বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। তবে হামলাকারীদের কাউকে পায়নি। পরে পুলিশ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে মরদেহ উদ্ধার করে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠায়। এ ঘটনায় আইনগত পদক্ষেপ প্রক্রিয়াধীন।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন