নোয়াখালীর চাটখিল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হওয়া রোগীকে অপহরণে ব্যর্থ হয়ে পিটিয়ে আহত করে ফেলে গেছে একদল সন্ত্রাসী।
গত সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে হাসপাতালের পুরুষ ওয়ার্ডে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় হাসপাতালে ভর্তি হওয়া অন্য রোগীদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, জায়গা-জমিসংক্রান্ত পূর্ব বিরোধের জের ধরে হামলার শিকার হয়ে উপজেলার মোহামঞ্চদপুর গ্রামের একই পরিবারের তিন নারীসহ সাতজন গত শনিবার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হন। তাঁদের মধ্যে পুরুষ ওয়ার্ডে চিৎিসাধীন আবদুর রহিম (৩০) নামে এক রোগীকে সোমবার সন্ধ্যায় অজ্ঞাতনামা একদল সন্ত্রাসী হাসপাতাল থেকে তুলে নেওয়ার চেষ্টা করে। এ সময় তাঁর চিৎকারে হাসপাতালে কর্তব্যরত ব্যক্তিরা এগিয়ে এলে সন্ত্রাসীরা আবদুর রহিমকে অপহরণে ব্যর্থ হয়ে বেধড়ক পিটিয়ে অচেতন অবস্থায় ফেলে চলে যায়। এ ঘটনায় সাধারণ রোগীরা আতঙ্কিত হয়ে দিগ্বিদিক ছুটোছুটি করে আত্মরক্ষা করেন। আবদুর রহিম অভিযোগ করেন, সন্ত্রাসীরা যাওয়ার সময় তাঁকে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে হাসপাতাল ত্যাগের সময় বেঁধে দেয়, অন্যথায় গুলি করে হত্যার হুমকি দিয়ে যায়। হুমকির বিষয়টি তিনি থানা পুলিশের কাছে অবহিত করেছেন। ঘটনার খবর পেয়ে থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মিজানুর রহমান হাসপাতালে গেলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়। তবে পুলিশ হাসপাতালে হামলাকারী সন্ত্রাসীদের কাউকে আটক করতে পারেনি। উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. খলিল উল্লা প্রথম আলোকে বলেন, ঘটনার সময় তিনি ছুটিতে ছিলেন। গতকাল এসে বিষয়টি জেনেছেন। চাটখিল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. ইব্রাহিম খলিল প্রথম আলোকে বলেন, দুই পক্ষের মধ্যে পূর্ব থেকে বিরোধ রয়েছে। এক পক্ষ অপর পক্ষকে ভয় দেখানোর জন্য ওই ঘটনা ঘটায়। তবে এ ধরনের ঘটনার যাতে পুনরাবৃত্তি না ঘটে সে বিষয়ে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের সতর্ক করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0