default-image

গুলশানের হোলি আর্টিজান বেকারিতে নিহত ব্যক্তিদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত জাপানের রাষ্ট্রদূত ইতো নাওকি। এ সময় তাঁর সঙ্গে ছিলেন বাংলাদেশে নিযুক্ত জাইকার প্রধান প্রতিনিধি মি. হায়াকাওয়া, সাবেক প্রধান প্রতিনিধি মি. হিরাতা ও ওরিয়েন্টাল কনশালটেশন গ্লোবালের ভারপ্রাপ্ত ব্যবস্থাপক মি. মুরাকি।

জাপান দূতাবাসের অফিশিয়াল ফেসবুক পোস্টে বলা হয়, ১ জুলাই মর্মান্তিক সন্ত্রাসী ঘটনার চার বছর পূর্ণ হলো। ওই ঘটনার শিকার সবার স্মরণে রাষ্ট্রদূত ঘটনাস্থলে এবং দায়িত্ব পালন অবস্থায় নিহত পুলিশ কর্মকর্তাদের স্মরণে স্মৃতিস্তম্ভে আজ পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।

ফেসবুক পোস্টে বলা হয়, রাষ্ট্রদূত ইতো নাওকি দুর্ঘটনায় প্রাণ হারানো ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তিদের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেন। রাষ্ট্রদূত বাংলাদেশের উন্নয়নে তাঁদের অবদানের কথা স্মরণে রাখার প্রতি গুরুত্ব দেন। জাইকা বাংলাদেশের প্রধান প্রতিনিধি এবং অন্যদের সঙ্গে একত্রে সর্বাধিক সুরক্ষা ও সুরক্ষাব্যবস্থা নেওয়ার ক্ষেত্রে বাংলাদেশের উন্নয়নে সহায়তার অগ্রযাত্রার ইচ্ছা প্রকাশ করেন তিনি।

২০১৬ সালের ১ জুলাই রাতে ঢাকার গুলশানে হোলি আর্টিজান বেকারিতে নৃশংস হামলা চালায় জঙ্গিরা। তারা অস্ত্রের মুখে দেশি-বিদেশি অতিথিদের জিম্মি করে। ভয়াবহ ওই হামলার ঘটনায় স্তম্ভিত হয়ে পড়ে পুরো দেশ। সেদিন জঙ্গিরা কুপিয়ে ও গুলি করে হত্যা করে ২০ জন দেশি-বিদেশি নাগরিককে, যাঁদের মধ্যে ৯ জন ইতালীয়, ৭ জন জাপানি, ১ জন ভারতীয় ও ৩ জন বাংলাদেশি। সেই রাতে অভিযান চালাতে গিয়ে পুলিশের দুই কর্মকর্তা নিহত হন। ভয়াবহ সেই হামলার চার বছর পূর্ণ হলো আজ।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন